সকাল ০৭:৪৯, সোমবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৩ মাঘ

বিএনপির আমন্ত্রণে আসা কূটনীতিকদের কাছেই বিচার চাইলেন জিয়ার আমলে নিহতদের পরিবার

বিএনপির সেমিনারে আসা কূটনীতিকদের স্মারকলিপি দিচ্ছেন নিহতদের পরিবারের সদস্যরা
বিএনপির সেমিনারে আসা কূটনীতিকদের স্মারকলিপি দিচ্ছেন নিহতদের পরিবারের সদস্যরা
  • মূলত মানবাধিকার ইস্যুতে আলোচনা করতে আসা বিদেশি কূটনীতিকদের কাছে ১৯৭৭ সালে জিয়াউর রহমানের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি তুলে ধরতেই এই পাল্টা কর্মসূচি দেয় তারা।

 

শুক্রবার ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে সেমিনারের আয়োজন করে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটি। সেমিনারে আমন্ত্রণ জানানো হয় বিভিন্ন দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও মিশন প্রধানদের।

অন্যদিকে এর পাল্টা কর্মসূচি হিসেবে হোটেলের বাইরে মানববন্ধন করে আছেন ১৯৭৭ সালের সামরিক ক্যু’পরবর্তী ষড়যন্ত্রের শিকার ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যরা। 

মূলত মানবাধিকার ইস্যুতে আলোচনা করতে আসা বিদেশি কূটনীতিকদের কাছে ১৯৭৭ সালে জিয়াউর রহমানের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি তুলে ধরতেই এই পাল্টা কর্মসূচি দেয় তারা।   

পাল্টা কর্মসূচিতে আসা নেতাকর্মী বলেন, ১৯৭৭ সালের ২ অক্টোবর জেনারেল জিয়াউর রহমানের ষড়যন্ত্রে তথাকথিত সামরিক অভ্যুত্থান সংগঠিত হয়। সেই কথিত বিদ্রোহ দমনের নামে অন্যায়ভাবে প্রায় এক হাজার ৪০০সেনা ও বিমানবাহিনীর সদস্যকে ফাঁসি, ফায়ারিং স্কোয়াড ও টর্চারিং সেলে হত্যা করা হয়। 

প্রায় তিন হাজার সেনা ও বিমানবাহিনীর সদস্যকে অন্যায়ভাবে বিভিন্ন মেয়াদে ১০ থেকে ২০বছর কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। প্রায় চার হাজার সেনা ও বিমান বাহিনীর সদস্যকে অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত করা হয়। জিয়া যাদের ফাঁসি, কারাদণ্ড ও চাকরিচ্যুত করেছেন তারা এদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। 

তারা আরও বলেন, আজ সেই ঠাণ্ডা মাথার খুনি জেনারেল জিয়াউর রহমানের দল মানবাধিকার নিয়ে বিভিন্ন মহলে অনেক কথা বলছে। এ কারণে আমরা খুনি জিয়ার মরণোত্তর বিচার চাই। 

আওয়ামী লীগের মানববন্ধন প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমরা সেমিনারে বিভিন্ন দেশের অতিথিদের আমন্ত্রণ জানিয়েছি। এরই মধ্যে তাদের এই আচরণ প্রমাণকরে দেশে কতটুকু মানবাধিকার বিরাজমান।

Share This Article


 ‘সুর সপ্তক’

রাজধানীর অত্যাধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস ‘সুর সপ্তক’!

সাবেক বিচারপতি টিএইচ খান

সাবেক বিচারপতি টিএইচ খান আর নেই

ফাইল ফটো

ইরানের কয়েকটি শহরে ‘রহস্যময়’ বিস্ফোরণ!

 নোভাক জোকোভিচ

শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ছাড়তেই হলো নোভাক জোকোভিচকে

ফাইল ফটো

যে কারণে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ বিসিবির কোচ!

ফাইল ফটো

যুক্তরাষ্ট্রে জিম্মি ঘটনার নেপথ্যে পাকিস্তানি বিজ্ঞানী!

আইভী

আবারও জয়ী আইভী

ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার

নাসিক নির্বাচনে ৫০ শতাংশ ভোট পড়েছে: ইসি সচিব

মীর আব্দুল হান্নান

বসিলায় অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে এপিবিএন সদস্য

ফাইল ফটো

টিকার চতুর্থ ডোজ নেওয়ার পরও ইসরায়েলের অর্থমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

ঘুমের অভাব ত্বকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়

ঘুমের অভাব ত্বকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়

ফাইল ফটো

আফগানিস্তানে মেয়েদের সব স্কুল খুলে দিচ্ছে তালেবান

ধর্মগুরু যতি নরসিংহানন্দ

ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের গণহত্যার ডাক, ভারতের ধর্মগুরুর!

স্বামী রাকিবের সাথে চিত্রানায়িকা মাহি

নাম বদলালেন চিত্রনায়িকা মাহি

উপমহাদেশের কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী লতা মঙ্গেশকর

ভক্তদের প্রার্থনা করতে বললেন লতা মঙ্গেশকরের চিকিৎসক