সকাল ০৯:২৬, সোমবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১০ মাঘ

পেটে কাচি রেখে সেলাই করা চিকিৎসকদের খুঁজে পায়নি তদন্ত কমিটি!

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক তরুণীর পেটে অস্ত্রোপচারের পরে পেটের মধ্যেই কাচি রেখে সেলাই করা এবং ৬৪৩ দিন পর বের করার ঘটনার তদন্তে গঠিত কমিটি প্রতিবেদন দিয়েছে।

 

প্রতিবেদনে এ ঘটনার জন্য কে দায়ী তা সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত করা হয়নি কিংবা কারও বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশও করা হয়নি। বিদেশি কয়েকটি নিবন্ধের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, বিভিন্ন দেশে এ জাতীয় ঘটনা আগেও ঘটেছে। ওই প্রতিবেদনে অস্ত্রোপচারের সময় অধিক সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক সাইফুর রহমানের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন তুলে দেয় গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি।

তদন্ত প্রতিবেদনে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ না থাকা এবং চিকিৎসকদের দায়ী না করায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন ওই তরুণীর পরিবার।

এদিকে, তদন্ত কমিটির রিপোর্টটিতে চিকিৎসকদের বাঁচানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা। তারা তদন্ত কমিটির সঙ্গে যারা জড়িত ছিলেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছেন।

গঠিত তদন্ত কমিটির সভাপতি ছিলেন সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামরুল হাসান। অপর দুই সদস্যের মধ্যে ছিলেন গাইনি বিভাগের অধ্যাপক কানিজ ফাতেমা ও সার্জারি বিভাগের মো. কামরুজ্জামান।

ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক সাইফুর রহমান বলেন, তদন্ত কমিটি কার গাফিলতিতে পেটে কাচি রাখার ঘটনাটি ঘটেছে তা শনাক্ত করতে পারেনি। পাশাপাশি ওই অস্ত্রোপচারের সঙ্গে যুক্ত কারও ব্যাপারে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণেরও সুপারিশ করেনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২০২০ সালের ৩ মার্চ সার্জারি ইউনিট-দুই এর দায়িত্বে নিয়োজিত সহযোগী অধ্যাপক মোল্লা সরফউদ্দিনের অধীনে এ অস্ত্রোপচারের সময় আরও তিন থেকে চারজন চিকিৎসক অংশ নেন।

পরিচালক বলেন, ওই প্রতিবেদনে বিশ্বের বিভিন্ন জার্নালের উদ্বৃতি দিয়ে বলা হয়েছে এ জাতীয় ঘটনা রেয়ার নয়। এর আগেও বিভিন্ন দেশে অস্ত্রোপচারের সময় এ জাতীয় ঘটনা ঘটেছে।

প্রসঙ্গত মনিরা খাতুন (১৯) গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ঝুটি গ্রামের বাসিন্দা খাইরুল মিয়ার মেয়ে। ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজে গত ২০২০ সালের ৩ মার্চ ওই মেডিকেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগ ইউনিট টু-তে এ অস্ত্রোপচার করা হয়। ওই সময় একটি কাচি মনিরার পেটে রেখে সেলাই করে দেন চিকিৎসক। ওই ঘটনার পৌনে দুইবছর পর গত ১১ ডিসেম্বর হাসপাতালেই পুনরায় অস্ত্রোপচার করে তরুণীর  পেট থেকে কাচিটি বের করা হয়।

Share This Article


বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি

সড়ক দুর্ঘটনায় ২০২১ সালে প্রাণ ঝরলো প্রায় ৮ হাজার

ঘরেই তৈরি করতে পারেন প্রাকৃতিক ভায়াগ্রা

প্রাকৃতিক ভায়াগ্রা নিজেই ঘরে তৈরি করবেন যেভাবে

সদস্য ও সাংবাদিক ছাড়া নির্বাচনের দিন অন্যদের প্রবেশ নিষেধ

শাবনাজ

করোনায় আক্রান্ত নায়িকা শাবনাজ

রুমিন ফারহানা

লবিস্ট নিয়োগ কোনো অবৈধ কাজ নয়: সংসদে রুমিন ফারহানা

ফাইল ফটো

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পাচ্ছেন যারা

রাজধানীর ভাটারায় ছয়তলা ভবনে আগুন

নায়ক রাজ রাজ্জাক

কিংবদন্তি নায়ক রাজ রাজ্জাকের জন্মদিন আজ

ফাইল ফটো

তামাকজাত দ্রব্যে সুনির্দিষ্ট করারোপ জরুরি

ফাইল ফটো

এবার অনলাইন ব্যবসায় সাকিব

ড্রোন ওড়ানো নিষিদ্ধ করলো আমিরাত

বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয় চক্রের হোতাসহ গ্রেফতার দুই

 পাপন

যে খেলতেই চায় না তাকে জোর করা ঠিক না: পাপন

ফাইল ফটো

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের বাড়ি থেকে গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি ও অভিনয়শিল্পী সংঘের নির্বাচন একই দিনে