Templates by BIGtheme NET
৩ আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ সফর, ১৪৪৩ হিজরি
Home » বিনোদন » ফকির আলমগীর
দেশের সঙ্গীত জগত হারালো উজ্জ্বল এক নক্ষত্র

ফকির আলমগীর
দেশের সঙ্গীত জগত হারালো উজ্জ্বল এক নক্ষত্র

প্রকাশের সময়: জুলাই ২৪, ২০২১, ৪:১৫ অপরাহ্ণ

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর। ২৩ জুলাই রাত ১১ টার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ৭১ বছর বয়সী এই কিংবদন্তি সংগীত শিল্পি।

ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে বাংলাদেশের সঙ্গীত জগত হারালো এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। দেশীয় সঙ্গীতে তার অভাব অপূরণীয়। আর তাই কোটি বাঙালির হৃদয়ে তিনি বেঁচে থাকবেন কালজয়ী গানের মাধ্যমে। অর্ধশতাব্দী ধরে ছিলেন শ্রমজীবী মানুষের কণ্ঠস্বর। সেই কণ্ঠস্বর থেমে গেল ভয়ঙ্কর অনুজীব করোনায়।

ফকির আলমগীরের জন্ম ১৯৫০ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি। ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার কালামৃধা গ্রামের শিশুটি পরবর্তীতে হয়ে ওঠেন শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের প্রতীক। গুণী এই শিল্পীর শৈশব কেটেছে কালামৃধায়। পড়াশোনা করেছেন তৎকালীন জগন্নাথ কলেজে।

ছাত্রজীবনেই নাম লেখান গণ ও পপ সঙ্গীতে। মুক্তিযুদ্ধে দেশ মাতৃকার ডাকে গান গেয়ে জুগিয়েছেন বিজয়ের শক্তি। পরবর্তীতে সৃষ্টি করেছেন বেশকিছু কালজয়ী গান, সমৃদ্ধ করেছেন বাংলা গানের ভান্ডার।

ক্রান্তি শিল্পী গোষ্ঠী ও গণশিল্পী গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানে অসামান্য ভূমিকা রাখেন তিনি। পরে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠী। নব্বইয়ের দশকে স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধে গড়ে উঠা সাংস্কৃতিক সংগঠন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটেও তিনি যুক্ত হয়েছিলেন। মৃত্যুর আগে তিনি এই সংগঠনের সহসভাপতির দায়িত্বে ছিলেন।

স্বাধীনতার পর ফকির আলমগীর পপ ঘরানার গানে যুক্ত হন। পাশ্চাত্য সংগীতের সঙ্গে বাংলার লোকজ সুরের সমন্বয় ঘটিয়ে তিনি বহু গান করেছেন।

একুশে পদক জয়ী এ শিল্পী দীর্ঘ সঙ্গীত জীবনে স্বতন্ত্র সুর ও কণ্ঠশৈলীর মূর্ছনায় মুগ্ধ করেছেন শ্রোতাকূল। ‘৭১-এর এই কণ্ঠযোদ্ধা হারিয়ে গেলেন সাত সুরের মায়া ছিন্ন করে। রেখে গেলেন অনুপম সৃষ্টি।

ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীসহ অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

18 + 19 =