Templates by BIGtheme NET
১৪ শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৯ জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৮ জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » এক নিমিষেই বদলে যাচ্ছে ৫৪ লাখ মানুষের জীবন

এক নিমিষেই বদলে যাচ্ছে ৫৪ লাখ মানুষের জীবন

প্রকাশের সময়: জুন ২২, ২০২১, ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ

গরিব-অসহায় মানুষের মধ্যে যাদের জমি আছে, কিন্তু ঘর তোলার সক্ষমতা নেই তারা পাচ্ছেন ঘর আর যাদের জমিটুকুও নেই তারা পাচ্ছেন ঘর-জমি দুটোই। এতে স্থায়ী ঠিকানা পেয়ে পাল্টে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের জীবনমান। নতুন জীবনবোধ তাদের সমাজে মর্যাদার সঙ্গে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখাচ্ছে। বিশ্বের অনেক দেশে ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য নানা উদ্যোগ থাকলেও এমনটি নেই। সব দেশেই আবেদনের পর যাচাই-বাছাইয়ের বিভিন্ন স্তর পার হয়ে ঘর-জমি পেলেও গুনতে হয় ঋণের কিস্তি। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোন বিনিময় ছাড়াই মানুষের মাথা গোঁজার স্থান তৈরি করে দিচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের জুন মাসে সারা দেশে দুই শ্রেণিতে আট লাখ ৮৫ হাজার ৬২২টি পরিবারের তালিকা করা হয়। এই তালিকা ধরে পর্যায়ক্রমে ঘর দেওয়া শুরু করেছে সরকার। চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি প্রথম পর্যায়ে ৬৯ হাজার ৯০৪টি পরিবারকে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। ২০জুন দ্বিতীয় পর্যায়ে একসঙ্গে ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে ঘরের চাবি বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

চলমান এই প্রকল্পে আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আরো এক লাখ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বিনা মূল্যে জমিসহ ঘর দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছেন প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। এই কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে ‘আশ্রয়ণ প্রকল্প-২’ শিরোনামে। সারা দেশে মাঠ প্রশাসনের মাধ্যমে সরাসরি এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, ভূমি মন্ত্রণালয়সহ সরকারের একাধিক উদ্যোগ থেকে গরিব-অসহায়, জলবায়ু উদ্বাস্তু, বেদে, জেলে, হিজড়া ও সমতলে থাকা ক্ষুদ্র্র নৃগোষ্ঠীর মানুষকে আশ্রয় দেওয়ার কার্যক্রম পরিচালিত হয়। উল্লিখিত সব কার্যক্রমের উদ্যোগকে একত্র করে মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে একসঙ্গে সমন্বিতভাবে কাজ হচ্ছে। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, শেখ হাসিনা প্রথম মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর ১৯৯৭ সালে আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে গরিব-অসহায় মানুষের মাথা গোঁজার ঠাঁই করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। বর্তমান উদ্যোগে প্রায় ৯ লাখ পরিবার ঘর পাচ্ছে। এর আগে আশ্রয়ণ প্রকল্পসহ বিভিন্ন উদ্যোগে হস্তান্তর করা হয়েছে প্রায় পৌনে দুই লাখ ঘর ও ফ্ল্যাট। পুরো প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এই উদ্যোগে উপকারভোগী পরিবার দাঁড়াবে পৌনে ১১ লাখে। প্রতি পরিবারে গড়ে পাঁচজন হিসাবে উপকারভোগীর সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৫৪ লাখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

twelve − five =