Templates by BIGtheme NET
১৪ শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৯ জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৮ জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » দ্বিতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সেমিপাকা ঘর পেলেন যারা

দ্বিতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সেমিপাকা ঘর পেলেন যারা

প্রকাশের সময়: জুন ২০, ২০২১, ৭:২৭ অপরাহ্ণ

মুজিববর্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের বিনামূল্যে ঘর উপহার দেওয়া প্রকল্প আশ্রয়ণ-২-এর আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫৩ হাজার ৩৪০ পরিবারকে দুই শতক জমির মালিকানাসহ সেমিপাকা ঘর উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২০ জুন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশের ৪৫৯টি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন এসব মানুষদের হাতে জমির দলিল ও ঘরের চাবি তুলে দেন সরকার প্রধান।

যারা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার-

কুড়িগ্রাম জেলায় ১ হাজার ৭০ গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার এ পর্যায়ে ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায়-১০০, ফুলবাড়ীতে ১০৫, উলিপুরে ১৫০, চিলমারীতে ৩০০, রৌমারীতে ২০১ পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার বাড়ি পেয়েছে।

নেত্রকোনা জেলায় এ পর্যায়ে ২৪ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ, ৬৫ প্রতিবন্ধীসহ ৯২৫ জনকে ঘর দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে কলমাকান্দায় ৫৫টি, দুর্গাপুরে ৪৫টি, সদরে ৬৪টি, বারহাট্টায় ২৫টি, কেন্দুয়ায় ৫৬টি, আটপাড়ায় ৫০টি, মদনে ১০৫টি, মোহনগঞ্জে ১০৫টি, খালিয়াজুরিতে ৪০০টি ও পূর্বধলায় ২০টি ঘর দেয়া হয়েছে।

রংপুর জেলায় ৭১৫ পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহারের পাকা ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলার ১০০, পীরগঞ্জে ১০০, পীরগাছায় ৪০, কাউনিয়ায় ২০০, মিঠাপুকুরে ৬৫, তারাগঞ্জে ১০০, বদরগঞ্জে ১০ এবং গঙ্গাচড়া উপজেলার ১০০ পরিবার ঘর পেয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ৬৮১ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১২৫, বিজয়নগরে ১৮৯, সরাইলে ৩১, নবীনগরে ১৫, নাসিরনগরে ৩১, বাঞ্ছারামপুরে ৬০, আশুগঞ্জে ২০, কসবায় ২০০ এবং আখাউড়ায় ৫০ পরিবার।

শেরপুর জেলায় ১৬৭ পরিবার ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৩০, নালিতাবাড়ীতে ৫০, নকলায় ৪২, শ্রীবরদীতে ২০ ও ঝিনাইগাতীতে ২৫ পরিবার।

লক্ষ্মীপুর জেলায় ১ হাজার ৭৮৬ পরিবার ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে সদরে ৫০, রায়পুরে ৫০, রামগঞ্জে ৫০ এবং কমলনগর উপজেলায় ৩৫০টি পরিবার ঘর পেয়েছে। অবশিষ্ট ঘরগুলো অল্প সময়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ হবে।

কক্সবাজার জেলায় মোট ১ হাজার ৪২৩ পরিবারকে ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে চকরিয়া উপজেলায় ৩০০ পরিবার ঘর পেয়েছেন।

রাজশাহী জেলায় ৮৫৪ পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে। নয়টি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলোর মাঝে গৃহ হস্তান্তর করা হয়।

পিরোজপুর জেলার সাত উপজেলায় ২ হাজার ৪টি পরিবার ঘর পেয়েছে। এর মধ্যে কাউখালী ও মঠবাড়িয়া উপজেলায় এ পর্যায়ে ২৫০ ও ১৫০ পরিবার নতুন ঘর পেয়েছে।

পটুয়াখালী জেলার ৮টি উপজেলায় ২ হাজার ৭৮১ পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজার জেলায় কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ৩৩০ পরিবার ও ১৬০ পরিবার পাকা ঘর পেয়েছে।

বাগেরহাট মোংলা উপজেলায় ৫০ পরিবার ও কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় ১৪৩ পরিবার ঘর পেয়েছে।

টাঙ্গাইল মধুপুর উপজেলায় ২০০ পরিবার ও চট্রগ্রামের বোয়ালখালী ও হাটহাজারী উপজেলায় যথাক্রমে ৪৭ ও ২৬ ভূমি ও গৃহহীন পরিবার ঘর পেয়েছে।

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় ২৮৭ পরিবারের মধ্যে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ ধাপে ৪০ পরিবার ঘর পেয়েছে। নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় ঘর পেয়েছে ১১৩ গৃহহীন পরিবার।

নওগাঁর পোরশা, সাপাহার ও পত্নীতলা উপজেলায় যথাক্রমে ৭১, ৬০ ও ১১৭ পরিবার ঘর পেয়েছে।

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ৯০ পরিবার ও ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় ১৩০ টি পরিবারকে দেয়া হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর।

খাগরাছড়ির মানিকছড়ির ৬০০, পিরোজপুরের খানসামায় ৪৪৫টি ও মানিকগঞ্জের শিবালয়ে ৪০ টি, জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় ২০০ পরিবার ঘর পেয়েছেন।

এছাড়া পঞ্চগড়ের বিভিন্ন উপজেলায় ৭১৫ টি ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা ৩৫৫ টি পরিবার প্রধানমন্ত্রীর দেয়া সেকিপাকা ঘর উপহার পেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten + eighteen =