Templates by BIGtheme NET
২৫ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৮ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২৫ রমজান, ১৪৪২ হিজরি
Home » ব্রেকিং নিউজ » স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল

প্রকাশের সময়: মে ৪, ২০২১, ৮:৪৭ পূর্বাহ্ণ

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অবহিত করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার সন্ধ্যায় মির্জা ফখরুল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে ফোন করেন বলে জানা গেছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন করে খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানিয়েছি।’

এর আগে, উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিয়ে যেতে তার পরিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে, এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বিষয়টি সত্য নয় বলে জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রেও জানা গেছে, ৩ মে সন্ধ্যায় খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা জানাতে মির্জা ফখরুল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন করেছিলেন।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) চিকিৎসাধীন। ৩ মে দুপুরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের সিসিইউতে নেওয়া হয়।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে খালেদা জিয়াকে দুপুর ২টায় সিসিইউতে নেওয়া হয়।

গত ১০ এপ্রিল করোনা পরীক্ষার পর ৭৫ বছর বয়সী খালেদা জিয়ার সংক্রমণ ধরা পড়ে। শুরুতে তিনি গুলশানে তার ভাড়া বাসা ফিরোজায় ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকীর অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

এরপর, ২৭ এপ্রিল আবার সিটি স্ক্যানসহ প্রয়োজনীয় কিছু পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়ার কথা জানান তার চিকিৎসক। দিবাগত সেই রাতেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া হয়। তাকে কার্ডিওলজিস্ট ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে রাখার কথা তখন জানিয়েছিলেন ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে দুই বছরের বেশি সময় বন্দী ছিলেন। কারাগারে থাকা অবস্থায় চিকিৎসার জন্য তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যেই দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। এরপরই গত বছর ২৫ মার্চ দণ্ড স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেয় সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

12 − 10 =