Templates by BIGtheme NET
৪ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৭ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৪ রমজান, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » খোয়া যেতে পারে মামুনুল হকের পদ

খোয়া যেতে পারে মামুনুল হকের পদ

প্রকাশের সময়: এপ্রিল ৭, ২০২১, ১২:২১ অপরাহ্ণ

মামুনুল হকের কথিত দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে চলমান বিতর্কে তীব্র অসন্তোষ তৈরি হয়েছে হেফাজতে ইসলামের ভেতরে। একের পর এক ফোনালাপ ফাঁস, দ্বিতীয় স্ত্রীর বড় ছেলের অনলাইন বক্তব্যসহ নানা ঘটনায় সংগঠনটির ভেতরে বেশ জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

মামুনুল হককে এখনই বহিষ্কার না করলেও তাঁর পদের ব্যাপারে সংগঠনটির ভেতরে আলোচনা শুরু হয়েছে। সার্বিক ঘটনায় ঘরে-বাইরে বেশ চাপের মুখে পড়েছেন মামুনুল হক

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংগঠনটির দুজন নেতা জানিয়েছেন, মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ যে হারে বাড়ছে, তা অব্যাহত থাকলে শেষ পর্যন্ত তাঁর পদ খোয়াও যেতে পারে।

জানা গেছে, রিসোর্টে সংঘটিত ঘটনার সময় হেফাজতকর্মীরা মামুনুলের পক্ষে অবস্থান নিলেও একের পর এক ভিডিও এবং তথ্য ফাঁসের ঘটনায় দলটির নেতারাও বিস্মিত ও চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। কারণ রিসোর্টে নাম লেখানোর সময় তিনি তথ্য গোপন করেছেন।

তা ছাড়া সরকারের সঙ্গে চরম বৈরী পরিস্থিতির মুখে এবং সারা দেশে অবনতিশীল করোনা পরিস্থিতির মধ্যে তিনি কিভাবে রিসোর্টে যেতে পারলেন, তা নিয়ে হেফাজতের বাইরে সমমনা ইসলামী দলগুলোর পাশাপাশি শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যেও প্রশ্ন উঠেছে।

মামুনুল হক শুধু হেফাজত নয়, ইসলামপন্থীদেরও সুনাম নষ্ট করেছেন। সর্বশেষ হেফাজতের ডাকা হরতালে নৈতিক সমর্থনদানকারী জামায়াত এবং বিএনপিও এ ঘটনায় হতবাক হয়েছে বলে জানা গেছে।

রিসোর্টে সংঘটিত ঘটনার পর হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে মামুনুল হকের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত নেতারা একমত হয়ে তাঁকে বলেছেন, দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে তাঁর রিসোর্টে যাওয়া ঠিক হয়নি

হেফাজতের মধ্যে নানা কারণে জনপ্রিয়তা থাকায় বেশ কয়েক বছর ধরে তিনি হেফাজতে প্রভাব বিস্তার করে আছেন। অনেকের মতে, এ কারণে তিনি কিছুটা বেপরোয়া হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

রিসোর্টে অপ্রীতিকর ঘটনায় প্রথম দিকে তাঁর পক্ষে সোচ্চার হলেও ধীরে ধীরে ঘটনা প্রকাশিত হয়ে পড়ায় হেফাজতের নেতাকর্মীরাও তাঁর ওপর ক্ষুব্ধ হতে শুরু করেছেন।

জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনায় দলের ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তার জন্য তহবিল গঠন না করে রিসোর্টে গিয়ে ফূর্তি করতে যাওয়ায় হেফাজতের নেতারা আরো ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

তা ছাড়া দ্বিতীয় স্ত্রী গ্রহণের ক্ষেত্রে গোপনীয়তা, একেকবার একেক নাম বলা, বন্ধুর সাবেক স্ত্রীকে ‘মানবিক কারণে বিয়ে করার’ যে বক্তব্য মামুনুল হক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিয়েছেন, তা নিয়েও ব্যাপক সমালোচনা ও বিদ্রুপ চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

twenty − 1 =