Templates by BIGtheme NET
১১ মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১১ জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
Home » অর্থনীতি » চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসেই রেকর্ড পরিমাণ কালো টাকা সাদা

চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসেই রেকর্ড পরিমাণ কালো টাকা সাদা

প্রকাশের সময়: জানুয়ারি ১২, ২০২১, ১২:১৫ অপরাহ্ণ

চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসেই রেকর্ড পরিমাণ ১০ হাজার কোটি কালো টাকা সাদা করা হয়েছে। অতীতে কয়েকবার সুযোগ দেয়া হলেও তেমন সাড়া মেলেনি। তবে এ বছরের ঘটনা সেক্ষেত্রে খুবই ইতিবাচক।

সরকারের রাজস্ব বিভাগ জানিয়েছে, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে শতকরা মাত্র ১০ ভাগ রাজস্ব প্রদানের মাধ্যমে কোনো প্রশ্ন ছাড়াই কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। কালো টাকা সাদা করার পক্ষে-বিপক্ষে রয়েছে বিস্তর বিতর্ক।

সরকারসহ যারা এর পক্ষে রয়েছেন, তারা বলছেন, দেশে থাকা বিশাল অঙ্কের কালো টাকা সাদা করা গেলে বিদেশে অবৈধ অর্থ পাচার যেমন কমবে, তেমনি এই অর্থ উন্নয়নের ধারায় যুক্ত হবে। আবার যারা বিপক্ষে রয়েছেন, তারা বলছেন, যারা নিয়মিত বৈধভাবে রাজস্ব দিয়ে থাকেন, তাদের ক্ষেত্রে রাজস্ব হার ৩০ শতাংশের মতো।

অতীতে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ মাঝে মাঝে দেয়া হলেও তেমন সাড়া মেলেনি।

২০১৫-১৬ অর্থবছরে সাদা করা হয়েছিল মাত্র ৪৫০ কোটি টাকা। আর ১৯৭২ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ৪১ বছরে ১৪ হাজার কোটি কালো টাকা সাদা করা হয়।

দেশে কত কালো টাকা আছে, তার সঠিক কোনো তথ্য নেই। তবে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, কালো টাকা বাড়তে বাড়তে এখন মোট জাতীয় আয়ের ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে। বিদেশে অর্থ পাচারের হার দেখলেই কালো টাকার পরিমাণ সম্পর্কে অনুমান করা সম্ভব।

জাতিসংঘের সংস্থা আঙ্কটাড, ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণা সংস্থা জিএফআই এবং টিআইবি পৃথক পৃথক গবেষণায় বলছে, গত ১৫ বছরে বাংলাদেশ থেকে কমপক্ষে ১২ হাজার কোটি ডলার অর্থ বিদেশে পাচার হয়ে গেছে। বিভিন্ন গবেষণা সংস্থা বলছে, বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর গড়ে ১ হাজার কোটি ডলার বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seventeen + eight =