Templates by BIGtheme NET
১৪ মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৪ জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » আলী যাকের: বর্ণাঢ্য এক জীবন

আলী যাকের: বর্ণাঢ্য এক জীবন

প্রকাশের সময়: নভেম্বর ২৭, ২০২০, ৩:৩৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ও ক্যান্সারের সাথে পরাস্ত হয়ে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও প্রবীণ অভিনেতা নাট্যজন আলী যাকের না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন। ২৭ নভেম্বর ভোরে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

১৯৪৪ সালের ৬ নভেম্বর চট্টগ্রামের রতনপুর ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন আলী যাকের। ১৯৬০ সালে সেন্ট গ্রেগরি থেকে ম্যাট্রিক পাস করে নটরডেমে ভর্তি হন আলী যাকের। সেখান থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর সমাজবিজ্ঞানে স্নাতক করেন। অনার্স পড়াকালেই ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতি শুরু করেন তিনি। অনার্স শেষ হওয়ার পর অর্থাৎ ১৯৬৭ সালে চলে যান করাচি। সেখানেই প্রথম অভিনয় করেন আলী যাকের। ১৯৬৯ সালে ঢাকায় ফিরেন আসেন।

আলী যাকেরের জীবন যেন বিচিত্র জীবনের বর্ণচ্ছটা। অভিনয় তো বটেই নাট্য নির্মানেও ছিলেন তিনি অগ্রগণ্য। এছাড়া শৌখিন ফটোগ্রাফার হিসাবেও তিনি সবার দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম ছিলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মারক মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের ট্রাস্টি ছিলেন। লিখেছেন বই। দৈনিক পত্রিকাতে তার শিল্প ভাবনা ও সমাজ ভাবনা তুলে ধরতেন তিনি অপকটে।

নাট্যকার মুনীর চৌধুরীর কবর নাটক দিয়ে মঞ্চের জীবন শুরু হয়। এরপর থিয়েটারকে তিনি জীবনের অংশ করে নিয়েছিলেন। স্বাধীনতার সময় নিজের সর্বোচ্চ দিয়ে দেশকে স্বাধীন করতে চেয়েছিলেন। ছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসংগ্রামী। একাত্তরে আট নম্বর সেক্টরে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন এই শব্দসংগ্রামী।

১৯৭২ সালের আলী যাকের আরণ্যক নাট্যদলের হয়ে মামুনুর রশীদের নির্দেশনায় মুনীর চৌধুরীর কবর নাটকটিতে প্রথম অভিনয় করেন। এরপর একে একে বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ, সৎ মানুষের খোঁজে, দেওয়ান গাজির কিস্সা, কোপেনিকের ক্যাপটেন, গ্যালিলিও, ম্যাকবেথ এবং বাদল সরকারের বাকি ইতিহাসসহ অনেক আলোচিত মঞ্চনাটকের অভিনেতা ও নির্দেশক তিনি। আজ রবিবার, বহুব্রীহি, তথাপি, পাথর, দেয়াল’সহ অসংখ্য টিভি নাটক দিয়ে দেশজুড়ে পরিচিতি পান আলী যাকের।

শিল্পকলায় অবদানের জন্য ১৯৯৯ সালে বাংলাদেশ সরকার আলী যাকেরকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত করে। তিনি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পুরস্কার, বঙ্গবন্ধু পুরস্কার, মুনীর চৌধুরী পদক, নরেন বিশ্বাস পদক এবং মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা পুরস্কার লাভ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

10 + 17 =