Templates by BIGtheme NET
১৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৯ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
Home » বিবিধ » যেভাবে কারাগারের ভেতরেই স্বাবলম্বী হচ্ছেন বন্দীরা

যেভাবে কারাগারের ভেতরেই স্বাবলম্বী হচ্ছেন বন্দীরা

প্রকাশের সময়: নভেম্বর ৮, ২০২০, ৩:৫১ অপরাহ্ণ

দীর্ঘ ২২ বছর কারাগারে খুনের মামলার সাজা কাটিয়ে গত ১ অক্টোবর মুক্তি পান বগুড়ার কাহালু উপজেলার ভাদাহারের বাসিন্দা আকবর আলী। তার বয়স এখন ৬৪ বছর। এই বয়সে শুরু করেছেন নতুন জীবন। খুনের মামলার সাজা খাটার সময় কারাগারেই কাঠমিস্ত্রির কাজ শিখেছিলেন। মুক্তি পেয়ে সেই কাজটিকেই পেশা হিসেবে নিয়েছেন।

আকবরের মতো আরও ৫৭ জন কয়েদি গত এক বছরে মুক্তি পেয়ে কারাগারে পাওয়া প্রশিক্ষণ কাজে লাগিয়ে স্বাবলম্বী হয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, কারাগারে মূলত অলস সময় কাটে বন্দীদের। তারা নানা ধরনের অপরাধে সাজা পাওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে মেশেন। ফলে একজন অপরাধীর অন্য অপরাধের দিকে ঝুঁকে পড়ার প্রবণতা থাকে। সেই সাথে অনেকে ভোগেন হতাশায়।

এই বিষয়টি চিন্তা করেই কারাগারে বিভিন্ন কাজের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয় সরকার। যেখানে বন্দীরা স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি মুক্ত হয়ে নতুন জীবন শুরু করতে পারেন।

কারাগারে কয়েদিদের সেলাই, হস্তশিল্প তৈরি, খাদ্য পণ্য তৈরি, পোশাক তৈরি, ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি সারাই, মাশরুম চাষের মতো মোট ৩৮ ধরনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

প্রশিক্ষণ পাওয়া বন্দীরা পণ্য তৈরি করেন। এসব পণ্য বিক্রি করে যে আয় হয়, তার অর্ধেক দেওয়া হয় বন্দীদের। ছয় বছরে ২৪ হাজার ৮৬৭ জন বন্দী প্রায় ৭১ লাখ টাকা পেয়েছেন বলেও জানায় কারা কর্তৃপক্ষ।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার সুভাষ কুমার ঘোষ বলেন, কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর বন্দীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাবেন, পরিশ্রম করে আয় করবেন—এই বিবেচনায় আমরা সব বন্দীকে কোনো না কোনো কাজের আওতায় আনতে চাইছি।

এ ছাড়া যাঁরা সাজা খেটে মুক্তি পেয়ে বিভিন্ন কাজ করছেন, তাঁদের খোঁজখবর রাখা, আরও কীভাবে সহযোগিতা করা যায়, তা নিয়ে পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, দেশে এখন কারাগারের সংখ্যা ৬৮টি। যার সবগুলোতেই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। এর মধ্যে ২৮টিতে বন্দীদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি পণ্য উৎপাদন হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

3 + nine =