Templates by BIGtheme NET
১৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৮ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১২ রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » সরকারের উদ্যোগ : সুদিন ফিরবে তাঁত শিল্পীদের

সরকারের উদ্যোগ : সুদিন ফিরবে তাঁত শিল্পীদের

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ২৯, ২০২০, ১:৩৫ অপরাহ্ণ

দেশে ক্রমেই কমছে তাঁতকলের সংখ্যা। সংস্কারের অভাবে হারিয়ে যেতে বসেছে এক সময়কার ঐতিহ্যবাহী এই শিল্পটি। তাই থমকে যাওয়া এ শিল্পের পুনর্জাগরণে একাধিক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার।

এতিহ্য ধরে রাখতে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের তারাবোতে স্থাপন করা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বস্ত্র ও পাট জাদুঘর। একই সঙ্গে উৎপাদিত জামদানি পণ্যের বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ তাঁতশিল্পীদের বিভিন্ন ধরনের সুবিধা নিশ্চিত করতে বিক্রয় কেন্দ্র ও বস্ত্র প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে।

এছাড়া তাঁতিদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ প্রদান ও ভোক্তার চাহিদার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নতুন নতুন ডিজাইন উদ্বোধন, দক্ষ ডিজাইনার ও মানবসম্পদ তৈরিতে ফ্যাশন ডিজাইন ইনস্টিটিউট নির্মাণ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। এতে ব্যয় হবে ২৮২ কোটির টাকার বেশি। প্রকল্পটি ২০২১ সালের জানুয়ারিতে শুরু হয়ে শেষ হবে ২০২৪ সালের জুনে।

নব্বইয়ের দশকেও হস্তচালিত তাঁতশিল্প ছিল দেশের সর্ববৃহৎ কুটির শিল্প। এ শিল্পে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রায় ১৫ লাখ মানুষ নিয়োজিত ছিল। কর্মসংস্থানের দিক থেকে কৃষি ও গার্মেন্টস শিল্পের পরেই তৃতীয় বৃহত্তম এবং গ্রামীণ কমর্সংস্থানের দিক থেকে দ্বিতীয় বৃহত্তম খাত ছিল তাঁত।

তবে ভিনদেশি পোশাকের বাজার দখল, আধুনিকায়ন ও পৃষ্ঠপোষকতা-প্রশিক্ষণের অভাবে তাঁতশিল্প ছেড়ে দিচ্ছেন তাঁতিরা।

প্রাথমিকভাবে দেড় হাজার তাঁত কারখানা আধুনিকায়নে দুই কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয় করবে সরকার। তবে তাঁতিদের কোনো অর্থ এ জন্য ব্যয় করতে হবে না। মূলধনের অভাবে যারা তাঁত ইউনিট বন্ধ রেখেছেন, এমন অস্বচ্ছলদের বিনা শর্তে ঋণ বিতরণ করবে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়।

প্রকল্পের আওতায় নারী তাঁতিদের ক্ষমতায়ন করা হবে। তাঁতখাতের উন্নয়ন ও আয় বর্ধনের মাধ্যমে তাঁতিদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন করাই এর মূল উদ্দেশ্য বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

5 × 4 =