Templates by BIGtheme NET
১৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৯ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » কালনা সেতু : যে সেতুতে পূরণ হবে ১০ জেলাবাসীর স্বপ্ন !

কালনা সেতু : যে সেতুতে পূরণ হবে ১০ জেলাবাসীর স্বপ্ন !

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ২৭, ২০২০, ২:২০ অপরাহ্ণ

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১০ জেলাবাসীর স্বপ্ন পূরণে নড়াইলে মধুমতি নদীর ওপরে দিন-রাত চলছে ৬ লেন বিশিষ্ট কালনা সেতুর নির্মাণ কাজ।

সেতুটি চালু হলে অপার সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হবে। পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক অবস্থাও বদলে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এর ফলে যশোরের বেনাপোল স্থল বন্দর, পদ্মা সেতু-ঢাকা-সিলেট-তামাবিল সড়কের মাধ্যমে ‘আঞ্চলিক যোগাযোগ’ স্থাপিত হবে।

বেনাপোল স্থল বন্দর থেকে আমদানি-রফতানি পণ্য সরাসরি কালনা এবং পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পণ্য পরিবহনে সুবিধা পাবেন ব্যবসায়ীরা।

এতে সময় বাঁচবে। কৃষি পরিবহন ও বিপণন সহজ হবে। এক কথায় পাল্টে যাবে মানুষের জীবনযাত্রার মান।

পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, কালনা ফেরিঘাটে নদী পারাপারের জন্য রয়েছে নামমাত্র ফেরিসেবা। প্রায়ই কুয়াশা ও নাব্যতা সংকটে পড়ে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

ফলে নদীর উভয় পাড়ে দীর্ঘ জটে পড়ে যানবাহন। তাই বাধ্য হয়েই ঘুরে মাগুরা, ফরিদপুর হয়ে গাড়ি চলাচল করে। এতে বছরে প্রায় দুই কোটি লিটারের বেশি অতিরিক্ত জ্বালানি তেল খরচ হয়। এছাড়া সময় অপচয় হয় ৫-৬ ঘণ্টা।

জানা গেছে, এ সেতুটি এশিয়ান হাইওয়ের অংশ। সেতুটি নির্মিত হলে ঢাকার সাথে নড়াইল-যশোর অঞ্চলের দূরত্ব কমবে প্রায় ২শ’ কিলোমিটার। একইভাবে দূরত্ব কমবে ঢাকার সঙ্গে শিল্প ও বাণিজ্যিক শহর নওয়াপাড়া, খুলনা ও মোংলা বন্দর এবং সাতক্ষীরা ও মাগুরাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১০টি জেলার।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৫ সেপ্টেম্বর এ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর ইতোমধ্যে সেতুটির নির্মাণ কাজ ৩৬ ভাগ শেষ হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে এর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

19 − ten =