Templates by BIGtheme NET
১৩ কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৯ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১১ রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » হলো ইফেক্ট: পছন্দের ব্যক্তি বা পণ্যের ত্রুটি ঢেকে দেয়

হলো ইফেক্ট: পছন্দের ব্যক্তি বা পণ্যের ত্রুটি ঢেকে দেয়

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ১, ২০২০, ৬:১১ অপরাহ্ণ

আগে দর্শনধারী পরে গুণবিচারী। বাংলায় বহুল প্রচলিত একটি উপমা। যিনি বলেছিলেন, তিনি নিশ্চয়ই অনেক ভেবে চিন্তে বলেছিলেন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের মনোবিজ্ঞানী থর্নডাইক এই ভাবনাকে ল্যাবরেটরী পর্যন্ত নিয়ে গেছেন।

১৯২০ সালে থর্নডাইক তার ল্যাবে একজন সেনা কমান্ডারকে ডেকেছিলেন কিছু সেনাসদস্যের শারীরিক যোগ্যতা পরীক্ষার জন্য। দেখা গেল, প্রথম পরীক্ষায় যারা ভালো রেজাল্ট করেছেন বাকি পরীক্ষাগুলোতেও কমান্ডার তাদের ভালো মার্ক দিয়েছেন। অন্যদিকে যারা প্রথম পরীক্ষাতেই কম মার্ক পেয়েছিলেন তারা পরবর্তীতে ভালো কসরৎ দেখিয়েও কম মার্ক পেয়েছেন।

মনোবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলা হয় ‘হেলো ইফেক্ট’। অর্থাৎ কোন ব্যাক্তিকে যদি আমি ভালো বলে ধরে নিই পরবর্তীতে তার সবকিছুই ভালো লাগে। সেই সেনা কামান্ডারও হেলো ইফেক্টের শিকার হয়েছিলেন।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, হেলো ইফেক্ট হচ্ছে একটি ভ্রান্তি , যার ফলে মানুষের একটি ভালো গুণ দিয়েই তার বাকি বৈশিষ্ট্য বিচার করা। এই ভ্রান্তি শুধু মানুষ নয়, যেকোনো পণ্য কিংবা ব্র্যান্ডের ক্ষেত্রেও হতে পারে।

মনোবিজ্ঞানীরা বলেন হলো ইফেক্টের কারণে আমরা পছন্দের নেতা বা কবি সাহিত্যিকদের কোন দোষ খুঁজে পাইনা, ধর্মীয় নেতা বা পীরের কোন কোন ত্রুটি না দেখে বরং তার অলৌকিক ক্ষমতার কথা বলতে ভালবাসি যা আদৌ সত্য নয়।

ঠিক একই রকম সুবিধা ভোগ করে বিশ্বের নামি-দামী ব্র্যন্ডগুলো। তাদের পণ্য কিনে আমরা মানসিক প্রশান্তি অনুভব করি। আমরা ভাবি, হ্যা ঠিক আছে। এটিই আমার উপযুক্ত।

বিজ্ঞানিরা আরো বলছেন, আমাদের মস্তিষ্ক এমনভাবেই তৈরী। আর এভাবে ভাবতেই আমরা পছন্দ করি। তাই রাষ্ট্রনেতা, ধর্মীয় নেতা আর বিশ্বখ্যাত ব্র্যন্ডের চাহিদা কখনোই কমবে না। কারণ, মানবজাতি এমন ভাবনা কতদিন বজায় রাখবে তাও বলা সম্ভব না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

thirteen + sixteen =