Templates by BIGtheme NET
৫ কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২১ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ৩ রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি
Home » জাতীয় » আনন্দবাজারের প্রতিবেদন
বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক জোরদারে ভারতের তৎপরতা বৃদ্ধি! (ভিডিও)

আনন্দবাজারের প্রতিবেদন
বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক জোরদারে ভারতের তৎপরতা বৃদ্ধি! (ভিডিও)

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০, ৮:০৬ অপরাহ্ণ

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্ব যেমন দীর্ঘদিনের তেমনি দুই দেশের সাম্প্রতিক টানাপোড়নও এখন উপমহাদেশে আলোচনার বিষয়। কারন দুই দেশের সম্পর্কের ওঠানামা দক্ষিন এশিয়ার রাজনৈতিতে গুরুত্বপূর্ণ পার্থক্য গড়ে দেয়।

সীমান্ত হত্যা, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য, নদীর পানি বন্টন নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে দীর্ঘদিনের টানাপোড়নের মাঝেই সম্প্রতি পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে ভারত। এতে ক্ষুব্ধ হয় বাংলাদেশ।

সম্প্রতি ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানী নিয়ে খোদ ভারতের দুই মন্ত্রণালয়ে টানাপোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। এমন কি পুনরায় পেঁয়াজ রপ্তানি চালু করতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়কেও হস্তক্ষেপ করতে হয়েছিলো। এছাড়া অবৈধ অনুপ্রবেশের প্রশ্নে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দ্বন্দও দীর্ঘদিনের।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের অবিশ্বাস ও ভুল বোঝাবুঝির গুমোট ভাব কাটাতে সম্প্রতি ঢাকা সফর করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। এছাড়া সম্পর্ক সাভাবিক করতে সম্পর্কের পূর্বসুত্রগুলো নতুনভাবে উজ্জীবিত করতে কাজ শুরু করেছে দেশটি।

আগামী বছর দু’দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি হচ্ছে। সেই উপলক্ষে আখাউড়া-আগরতলা রেল যোগাযোগ, মৈত্রী শক্তি প্রকল্প-সহ বেশ কিছু প্রকল্পের উদ্বোধন হবে। এছাড়া দুই দেশের মধ্যে থমকে থাকা যৌথ নদী কমিশনের বৈঠক আবার কীভাবে শুরু করা যায়, তা নিয়ে ভাবছে ভারত।

ভারতীয় অর্থে বাংলাদেশে যে প্রকল্পগুলি চলছে, সেগুলির দ্রুত বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছে দেশটি। এর আগে দেশের ৪০টি আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে কাজ শুরু করেছিলো ভারত। সে প্রকল্পগুলো এখন কোন পর্যায়ে রয়েছে, তা নিয়ে খোঁজ খবর শুরু করেছেন তারা।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবরই বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতে তৎপর। কিন্তু ভারত সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দ্বন্দের কারণেই তা বার বার বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

ভারতীয় নীতি নির্ধারকরা মনে করেন, ভারতের একাধিক সীমান্ত যখন উত্তপ্ত, তখন বাংলাদেশের মতো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশীর সঙ্গে সুমধুর সম্পর্ক রাখাটা বিদেশনীতির বাধ্যবাধকতার মধ্যে পড়ে। আগামী দিনগুলোতে সে দিকেই নজর থাকবে ভারতের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

four × five =