Templates by BIGtheme NET
৬ কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২২ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ৪ রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি
Home » বিশেষ সংবাদ » কমলা চাষে জীবন বদল ফারুকের

কমলা চাষে জীবন বদল ফারুকের

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০, ৯:১৭ অপরাহ্ণ

চুয়াডাঙ্গায় কমলা চাষা মানুষদের মধ্যে সম্ভবনার আশা জাগাচ্ছেন ওমর ফারুক নামের এক কৃষক। ছিলেন নার্সারীর মালিক, সেখান থেকে কমলা চাষ করে হয়েছেন কৃষক। তার বাগানের উৎপাদন তাক লাগিয়ে দিয়েছে সবাইকে। চায়না কমলার চাষ করে তিনি এখন বছরে আয় করছেন ১৫ লাখ টাকা।

এখন আর দিনমজুর হিসেবে খাটতে হচ্ছে না ওমর ফারুককে। কিন্তু চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার নিধিকুন্ডু গ্রামের ফারুকের ভাগ্য বাঁধা ছিলো কাস্তে ও নিরানির কঠোর শ্রমে। এক সময় তিনি অন্যের জমিতে দিনমজুরী দিলেও এখন নিজেই নিজের নার্সারীতে ৩০ জনকে কাজ দিয়েছেন।

সাফল্যের গল্পটা শুরু ২০১৫ সালে। এক বন্ধুর কাছ থেকে চায়না কমলা গাছের ঢাল এনে নিজের জাম্বুরা গাছের ঢালে কলম করেন ফারুক। ২০১৬ সালে এক বিঘা জমি লিজ নিয়ে ১০০টি কমলার চারা রোপন করেন।

ওমর ফারুক জানান, ২০১৮ সাল থেকে গাছ প্রতি ৩০-৪৫ কেজি কমলা হচ্ছে। ১০০ টাকা কেজি দরে তা বিক্রি করেন তিনি।

প্রথম ও দ্বিতীয় বছর উৎপাদন কম হলেও তৃতীয় বছর থেকে বদলে যায় দৃশ্যপট। এরপর আর পেছনে তাকাননি ফারুক। বলেন, বাংলাদেশে যে ৬ হাজার কোটি টাকার কমলা বাহিরের দেশ থেকে আসে এটা আর আমরা বাহির থেকে আনতে হবে না। আগামী ২ থেকে ৩ বছরের মধ্যে দেশের উৎপাদিত কমলা দিয়েই দেশের চাহিদা পুরণ করা যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বর্তমানে প্রতিটি গাছে বছরে ৮০ থেকে ৯০ কেজি কমলা উৎপাদন হচ্ছে। যা দেখতে দুরদুরান্ত থেকে আসছেন দর্শনার্থীরা। তারা বলছেন, বাংলাদেশে এমনভাবে কমলা উৎপাদন হবে তা আমরা কখনো কল্পনাও করতে পারি নাই। অনেকে আবার দেখার পর কমলা বাগান করা ইচ্ছাও প্রকাশ করেছেন।

এই খবর ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যার কারণে কলকাতা থেকেও কেউ কেউ আসছেন কমলা বাগান দেখতে। যাতে এখান থেকে অভিজ্ঞতা নিয়ে কলকাতায় কমলা চাষ করা যায়। দেখতে আসা একজন কলকাতা অধিবাসী বলেন, সমতল ভূমিতে কিভাবে কমলা লেবু হচ্ছে তা দেখতে এসেছি। এখান থেকে অভিজ্ঞতা নেওয়ার জন্য এখানে এসেছি।

এলাকার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আলী হাসান জানান, কমলা চাষে সফল ফারুক এখন অনেকের কাছে উদাহরণ। এই অঞ্চলে কমলা চাষের একটি সম্ভবনা তৈরি হয়েছে। যা এই অঞ্চলের কৃষিকে সমৃদ্ধ করবে।

বর্তমানে ১০ বিঘা জমিতে ৩০ হাজার কমলাসহ ৫০ হাজার চারা রয়েছে ফারুকের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

19 − four =