Templates by BIGtheme NET
১১ আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ৮ সফর, ১৪৪২ হিজরি
Home » অর্থনীতি » করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে টেনে তুলতে চায় সরকার

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে টেনে তুলতে চায় সরকার

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০, ৩:০৭ অপরাহ্ণ

করোনাকালে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প বা এসএমই খাতকে টেনে তুলতে চায় সরকার। ইতোমধ্যে এই খাতকে সচল করতে বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্প্রতি এ খাতের উন্নয়নে ২০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করলেও ব্যাংগুলোর জামানতের কঠিন শর্তের বেড়াজালে পড়েছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা।

এ অবস্থায় এসএমই খাতের প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ দ্রুত বিতরণে ব্যাংকগুলোকে উৎসাহিত করতে ক্রেডিট গ্যারান্টি দিতে যাচ্ছে সরকার। এজন্য বরাদ্দ রাখা হচ্ছে দুই হাজার কোটি টাকা।

পাশাপাশি এসএমই ঋণে গ্যারান্টি দিতে বিশ্ব ব্যাংকও নিয়ে আসছে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার প্রকল্প। এই দুই স্কিমের আওতায় ব্যাংকগুলো তাদের ঋণ ফেরত পাওয়ার নিশ্চয়তা পাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উল্লেখ্য, সারাদেশে এসএমই খাতের ৭৮ লাখ শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে এ খাত।

এ খাতে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগও রয়েছে। পণ্য উৎপাদনের পাশাপাশি সেবা খাত হিসেবেও এটি দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে এখন সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মুখে পড়েছে এ খাতের সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) এক গবেষণায় দেখা গেছে, দেশের অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি পর্যায়ের শিল্প খাতে (এমএসএমই) সবমিলিয়ে ১৩ লাখ ইউনিট রয়েছে। মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপি’র ২৫ শতাংশ আসে এ খাত থেকে। আবার শিল্প খাতের কর্মসংস্থানের ৮৬ শতাংশই এ খাতে, যা সংখ্যায় প্রায় এক কোটি।

এ খাতে মাসে প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকার পণ্য উৎপাদন হয়, মজুরি দেয়া হয় প্রায় ছয় হাজার কোটি টাকার। জিডিপিতে এমন অবদান রাখা সত্ত্বেও এ খাতের মাত্র ৩৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠান ব্যাংক ঋণ পায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three × one =