Templates by BIGtheme NET
১৫ আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১২ সফর, ১৪৪২ হিজরি
Home » অর্থনীতি » ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের বস্ত্র খাত

ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের বস্ত্র খাত

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০, ১২:১৪ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্কঃ

করোনার ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে দেশের বস্ত্রখাতও। এই খাতের উদ্যোক্তারা বলছেন, তৈরি পোশাক খাতে বাতিল হওয়া ক্রয়াদেশ ফিরে আসার প্রভাব পড়েছে বস্ত্রখাতেও। বর্তমানে নভেম্বর পর্যন্ত ক্রয়াদেশ রয়েছে এসব কারখানায়। মোট সক্ষমতা ৮০ শতাংশ এখন উৎপাদন হচ্ছে কারখানাগুলোতে।

দেশের তৈরি পোশাক শিল্পের ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ হিসেবে পরিচিত বস্ত্র খাতে সুতা ও কাপড়ের উৎপাদক প্রতিষ্ঠান রয়েছে ১ হাজার ২৩২টি। এই মিলগুলো দেশের রফতানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্পে প্রয়োজনীয় সুতার প্রায় ৯০ শতাংশ এবং কাপড়ের প্রায় ৪০ শতাংশ সরবরাহ করে থাকে। করোনা সংকট শুরুর পর পোশাক খাতের সাথে ক্রয়াদেশ হারায় বস্ত্রখাতও। বস্ত্র খাতের ব্যবসায়ীদের মতে, প্রায় দেড়শ’ কোটি ডলারের ক্রয়াদেশ এই শিল্প।

জানুয়ারি মাসে ৯৮ লাখ ডলার, ফেব্রুয়ারি মাসে ১ কোটি ২৮ লাখ ডলার, মার্চ মাসে ১ কোটি ৯ লাখ ডলার, এপ্রিল মাসে রপ্তানি ২১ লাখ ডলার, মে মাসে রপ্তানি ৫০ লাখ ডলার জুন মাসে রপ্তানি ৯৮ লাখ ডলার, জুলাই মাসে ৯৪ লাখ ডলার, অগাস্ট মাসে রপ্তানি ১ কোটি ৯২, তবে তৈরি পোশাকে বাতিল হওয়া ক্রয়াদেশগুলোর ৯০ শতাংশই আবার ফেরত আসায় দেশের বস্ত্র খাতেও উৎপাদন বাড়তে শুরু করেছে। নভেম্বর পর্যন্ত ক্রয়াদেশ রয়েছে কারখানাগুলোতে।

এই খাতের কারখানাগুলো তাদের মোট উৎপাদন সক্ষমতার ৮০ শতাংশ উৎপাদন করছে। যা জুন মাসেও ছিল ৫৫ শতাংশে। এছাড়া স্থানীয় চাহিদা মেটাতে ছোট ও মাঝারি আকারের আরো অনেক বস্ত্র কারখানা রয়েছে। চীন থেকে কাপড় আমদানি বন্ধ থাকায় বড় ও মাঝারি কারখানাগুলোর অবস্থা এখন ভাল। তবে সরকারি প্রনোদনার সুবিধা না পাওয়ায় সংকটে আছে ছোট কারখানার উদ্যোক্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seventeen − four =