Templates by BIGtheme NET
২৬ শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১০ আগস্ট, ২০২০ ইং , ১৯ জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
Home » জাতীয় » চীন-ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশ
সাম্প্রতিক বিতর্ক নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর অবস্থান

চীন-ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশ
সাম্প্রতিক বিতর্ক নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর অবস্থান

প্রকাশের সময়: জুলাই ৩০, ২০২০, ৩:২৩ অপরাহ্ণ

সম্প্রতিকালে চীন ও পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক নিয়ে ভারতের বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও দেশের মধ্যেও যেসব আলোচনা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে তাতে বিরক্তি প্রকাশ করে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পষ্ট করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন।

 

সে বিষয়ে কিছু উল্লেখযোগ্য বক্তব্য তুলে ধরা হলো :

 

দুটি বড় উন্নয়নশীল দেশকে প্রতিবেশী হিসেবে পাওয়া সৌভাগ্যের বিষয়। দুই দেশই বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার।

 

প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সাথে বাংলাদেশের কোনো সমস্যা নেই। চীন ও ভারত উভয়ই বাংলাদেশের প্রতি উদার মনোভাব পোষণ করে। একটি টেলিফোন কলে এতো সমস্যা হবে কেন?

ইমরান খানের টেলিফোন ছিলো সৌজন্যমূলক ‘প্রথাসিদ্ধ কূটনৈতিক আচরণ’।  এই ফোনকলকে কেন্দ্র করে অযথা কাশ্মির ইস্যুকে অতিরঞ্জিত করা হচ্ছে।

 

বাংলাদেশের সাথে বন্ধন সুদৃঢ় করতে হলে পাকিস্তানকে ১৯৭১ সালের গণহত্যার জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে।

 

ভারতের সঙ্গে আমাদের একটি ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। ভারতের এমন কোনো কর্মকাণ্ডের অনুমতি দেয়া উচিত নয়, যা আমাদের সুন্দর এবং গভীর সম্পর্ককে ভাঙতে পারে।

 

বিশেষ করে রামমন্দিরকে কেন্দ্র করে সম্পর্কে ক্ষতি চাই না।  আমরা রামমন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে সেই সম্পর্কের ক্ষতি করতে দেবো না।

 

ভারতের সঙ্গে স্থলসীমানা, সমুদ্রসীমাসহ অন্যান্য ইস্যু শান্তিপূর্ণভাবে মীমাংসা করেছে বাংলাদেশ। তিস্তা নিয়েও সঠিক পথেই এগোচ্ছে দেশ।

 

ভারত ও বাংলাদেশের প্রতিটি স্তর থেকেই দু’দেশের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখতে হবে। কেবল সরকার একা এ জাতীয় সম্পর্ক গড়তে বা ধরে রাখতে পারে না।

মিয়ানমারের সঙ্গেও আমরা ভালো সম্পর্ক চাই। তাই রোহিঙ্গা ইস্যুতে শান্তিপূর্ণ সমাধানের পথে হেঁটেছি। ভারত ও চীন উভয়েই মনে করে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দ্রুতই শুরু হওয়া উচিত।

তথ্য সূত্র :  নয়া দিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten + eighteen =