Templates by BIGtheme NET
২০ আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৪ জুলাই, ২০২০ ইং , ১২ জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
Home » আন্তর্জাতিক » জিরো ওয়েস্টের দেশ জার্মানি
যে কারণে শিশুদের পুরনো খেলনা কিনে দেন মা-বাবা
cute mother and child boy play together indoors at home

জিরো ওয়েস্টের দেশ জার্মানি
যে কারণে শিশুদের পুরনো খেলনা কিনে দেন মা-বাবা

প্রকাশের সময়: জুন ৩, ২০২০, ৯:০৪ অপরাহ্ণ

জার্মান এমন একটি দেশ যেখানকার ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম অন্য সবার জন্য অনুকরণীয়।

সাধারণত সেখানকার ডাস্টবিনে যা ফেলা হয় তার শতভাগ রিসাইকেল করা হয়। অর্থাৎ নদী-নালায় বা ডাম্পিং স্টেশনে কিছু ফেলতে হয় না।

সেখানকার ডাস্টবিনেও কম ময়লা ফেলা হয়, কারণ তারা প্রতিটি পণ্য বহুবার ব্যবহারের চেষ্টা করে।

এমনকি শিশুদের খেলনা, জামা-জুতাও তারা বহুবার ব্যবহার করেন।

একটি শিশু শৈশবে যে খেলনা দিয়ে খেলে, শিশু বড় হয়ে গেলে মা-বাবা সেটি পুরান মার্কেটে বিক্রি করে দেয়।

দোকানদাররা এগুলো মেরামত ও পরিস্কার করে দোকানে সাজিয়ে রাখেন। সেখানে বয়স অনুযায়ী খেলনা সাজানো থাকে।

সদ্য জন্মানো সন্তানের বাবা-মায়েরা এসব খেলনা দোকান থেকে কিনে নিয়ে যান। প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে সেটি আবার দোকানে বিক্রি করে দেন।

শুধু খেলনা নয়, শিশুর জামা, জুতা থেকে শুরু করে আসবাবপত্র তারা বহুবার ব্যবহার করেন।

বিজ্ঞানীদের মতে, এটি খুবই পরিবেশসম্মত একটি ব্যবস্থা। একটি প্লাস্টিকের খেলনা বানাতে অনেকটা জীবাস্ম জ্বালানি ব্যবহার হয়।

সেটি ডাস্টবিনে ফেলে দিলেও রিসাইকেল করতে জ্বালানি খরচ হয়, যা পরিবেশ দূষণের অন্যতম কারণ।

তবে সেটি ১০ বার ব্যবহার করলে অন্তত ১০ গুন জ্বালানি শক্তি কম খরচ হয়। পরিবেশও প্লাস্টিকের দূষণ থেকে কিছুটা মুক্ত থাকে।

জার্মানির মা-বাবারা নিজের সন্তানকে পুরাতন খেলনা বা জামা-কাপড় কিনে দিতে কোন হীনমন্যতায় ভোগেন না।

বরং সন্তানকে একটি দূষণমুক্ত পরিবেশ উপহার দিতেই বেশি চেষ্টা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

2 × 2 =