Templates by BIGtheme NET
২৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৬ জুন, ২০২০ ইং , ১৩ শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » খেলাধূলা » বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা, অতিথিপরায়ণতার প্রশংসা করলেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম

বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা, অতিথিপরায়ণতার প্রশংসা করলেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম

প্রকাশের সময়: মে ২০, ২০২০, ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা, অতিথিপরায়ণতার প্রশংসা করলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম। খেলোয়াড়ী জীবনে একাধিকবার বাংলাদেশে এসেছে ওয়াসিম। খেলা ছাড়ার পর ধারাভাষ্যের কাজে নিয়মিত এসেছেন এ বদ্বীপে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়েছেন। বন্ধু-বান্ধব বানিয়েছেন অনেক। এটা-ওটা খেয়ে বাংলাদেশের খাবারের ভক্ত হয়েছেন তিনি। তবে তাঁর মুখে সবচেয়ে সুস্বাদু লেগেছে বাংলাদেশের মাছের ঝোল।

পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী এ তারকা বলেন, ‘বাংলাদেশের মাছের ঝোলের স্বাদ কখনো ভুলতে পারি না।’

মঙ্গলবার রাতে তামিমের নিয়মিত লাইভ আড্ডার অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে আসেন ওয়াসিম আকরাম। সেখানে বাংলাদেশ, বাংলাদেশের মানুষদের ভালোবাসার কথা ভাগাভাগি করেন ওয়াসিম। লাইভ আড্ডায় ছিলেন জাতীয় দলের তিন সাবেক ক্রিকেটার মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, আকরাম খান ও খালেদ মাসুদ পাইলট।

শুরুতেই ওয়াসিম আকরাম বলেন, ‘আমি সব সময়ই বাংলাদেশে খেলা উপভোগ করেছি। আমি এ তিনজনের সাথে খেলেছি, বিপক্ষে খেলেছি। বিশ্বাস করি মাঠে এবং মাঠের বাইরে আমরা সব সময় ভালো বন্ধু ছিলাম। কিন্তু এখন তুমি (তামিম) বাদে আমরা সবাই বুড়ো হয়ে গেছি।’

এরপর কথার ফাঁকে ফাঁকে বাংলাদেশের সংস্কৃতির প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের খাবারের বন্দনা করেন । কিংবদন্তি ক্রিকেটার জানান, বাংলাদেশকে হৃদয় থেকে অনুভব করেন এবং বাংলাদেশ ক্রিকেটের বর্তমান অবস্থার জন্যও গর্ববোধ করেন।

তিনি বলেন, ‘খেলা ছাড়ার পরও বাংলাদেশে যাওয়া হয়েছে। ধারাভাষ্য দিতে বাংলাদেশি গিয়েছি। আকরাম, রিজওয়ানের সাথে অনেক আড্ডা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশকে হৃদয় থেকে অনুভব করি এবং সত্যি বলছি বাংলাদেশ সব সময় আমার হৃদয়ের কাছে ছিল। এখানকার মানুষ, বৈচিত্র্য, খাওয়া-দাওয়া, ক্রিকেটার সব কিছুর আমি ভক্ত। বাংলাদেশের মাছের ঝোলের স্বাদ ভুলতে পারি না।’

‘পাশাপাশি যোগ করতে চাই, বাংলাদেশ ক্রিকেট আজ যে অবস্থানে এসেছে সেটা দেখে খুবই গর্ব হয়। বিশ্বের অন্যতম সেরা কিছু খেলায়াড় এসেছে। তামিম তুমি নিজে, সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান…তোমাদেরকে দেখে খুব ভালো লাগে। তবে এখানে যারা আছে তারা কেউ ফিল্ডিংয়ে ভালো ছিল না। কিন্তু এখন ফিল্ডিংয়ে অসাধারণ উন্নতি করেছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 × 1 =