Templates by BIGtheme NET
২৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৬ জুন, ২০২০ ইং , ১৩ শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » করোনাভাইরাস » দুই ওষুধের সংমিশ্রণে করোনার চিকিৎসা
গবেষণার প্রয়োজন আছে জানালেন ডা. তারেক

দুই ওষুধের সংমিশ্রণে করোনার চিকিৎসা
গবেষণার প্রয়োজন আছে জানালেন ডা. তারেক

প্রকাশের সময়: মে ১৮, ২০২০, ৮:১৪ অপরাহ্ণ

সম্প্রতি দুটি সাধারণ ওষুধের সম্মিলিত ব্যবহারে করোনা রোগীদের সুস্থ করে তুলেছেন বলে দাবি করেছেন  বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. তারেক আলম।

তিনি জানান, অ্যান্টিপ্রোটোজোয়াল মেডিসিন ইভারমেকটিনের সিঙ্গেল ডোজের সঙ্গে অ্যান্টিবায়োটিক ডক্সিসাইক্লিন এর সম্মিলিত প্রয়োগে মাত্র ৪ দিনে ৬০ জন রোগী বিস্ময়করভাবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এটি আমাদের কাছে রীতিমতো বিস্ময়কর লেগেছে। আরো আগে যদি আমরা ওষুধ নিয়ে কাজ করতাম, তবে এতদিনে হয়তো অনেককে বাঁচানো যেত।

 

তিনি আরো বলেন,  আমাদের হাসপাতালটি কোভিড-১৯ ডেজিগনেটেড  নয়। ফলে এখানে করোনার রোগীরা সাধারণত আসেন না। কিন্তু যে ৬০ জনকে আমরা চিকিৎসা দিয়েছি তারা প্রাথমিকভাবে আক্রান্ত ছিলেন এবং এদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা কিছুটা গুরুতর ছিলো। তারা এই ওষুধেই সুস্থ্য হয়ে উঠেছেন।

 

গবেষণার ভিত্তি :

ডা. তারেক জানান, অস্ট্রেলিয়ার মোনাশ ইউনির্ভাসিটির একটি  টেস্ট ল্যাব  গবেষণায় (সেল কালচারে, প্রাণি বা মানুষের শরীরে নয়) দেখা গেছে এমন ওষুধ প্রয়োগে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।  তবে এটি শুধুই  ল্যাব টেষ্ট, বিশ্ব স্বীকৃত একাডেমিক কোন গবেষণা নয়।

 

যেহেতু কোভিডের চিকিৎসায় কোনো নির্দিষ্ট ওষুধ নেই, তাই বিদেশি গবেষণার  ফলাফলকে আমলে নিয়েই আমরা চিকিৎসা করেছি।

 

কার্যকারিতা :

ডা. তারেক জানান, এই ওষুধ দুটি এর আগেও সার্স মহামারির সময় ব্যবহার করা হয়েছিল এবং এটি বিশ্ব স্বীকৃত রেমডিসিভিরের চেয়েও বেশি কার্যাকর।  ইতিমধ্যে পেরু, ইরাকসহ কয়েকটি দেশে একই পদ্ধতি প্রয়োগ হয়েছে।

 

তবে মানবদেহে দীর্ঘমেয়াদী পার্শপ্রতিক্রিয়াসহ বিভিন্ন বিশ্লেষনের মাধ্যমে ওষুধের যে ইনন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড দেয়া হয় সেটি এখানে অনুপস্থিত রয়েছে। ফলে আন্তর্জাতিক কোন সংস্থা এখনই একে করোনার ওষুধ বলে স্বীকৃতি দেবে না। তবে কয়েকদিনের মধ্যে আইসিডিডিআরবি এই ওষুধনিয়ে গবেষণা শুরু করবে বলে জানা গেছে।

 

তাদের এই কাজকে ‘গবেষণা’ বলার সুযোগ আছে কিনা- এমন প্রশ্নের উত্তর ডাক্তার তারেক বলেন, “প্রশ্নই আসে না। গবেষণা করেছি এমন কথা বলিনি। এখানে গবেষণা করার সুযোগ নেই এবং গবেষণার জন্য যেসব শর্ত মেনে চলতে হয় সেগুলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমরা এসব কিছু করিনি। আমরা শুধু এখানে আসা রোগীদের চিকিৎসা দিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

5 − five =