Templates by BIGtheme NET
২৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৬ জুন, ২০২০ ইং , ১৩ শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিবিধ » অ্যাকোয়া টোফানা
যে বিষ অত্যাচারি স্বামীদের হত্যা করেছিল

অ্যাকোয়া টোফানা
যে বিষ অত্যাচারি স্বামীদের হত্যা করেছিল

প্রকাশের সময়: মে ৫, ২০২০, ২:২৯ অপরাহ্ণ

মোহাম্মাদ এনামুল হক এনা: জুলিয়া টোফানা। তিনি ইতালির বাসিন্দা। জুলিয়া খুব কম বয়সে তার বাবা মাকে হারান। ১৬৩৩ সালে জুলিয়ার মা তার বাবাকে হত্যা করে। আর সে অপরাধে জুলিয়ার মায়ের মৃত্যুদন্ড হয়। সেসময় নারীদের উপর খুব অত্যাচার করা হত। অনেকটা পণ্য হিসেবেই গণ্য করা হত তাদের।

বিবাহ বিচ্ছেদ সহজ উপায় হলেও ইতালিবাসী ১৭ শতকের দিকে এ পন্থাকে পাপ হিসেবে দেখতো। বিবাহ বিচ্ছেদের থেকে বিধবা হওয়া তখন ভালো ছিল। বিধবাদের সবাই সাধারণ চোখে দেখলেও বিবাহ বিচ্ছেদ তারা মানতে পারত না।

জুলিয়া একাই বড় হতে থাকেন। এক পর্যায়ে তিনি একটি ওষুধ তৈরি কারখানায় কাজ পায়। সেখানে মূলত তার কাজ ছিল বিভিন্ন রোগের ওষুধ তৈরিতে সাহায্য করা। এখান থেকেই জুলিয়া বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থের বিষয়ে রীতিমত দক্ষ হয়ে ওঠেন। সেসময় জুলিয়া একটি অ্যাকোয়া টোফানা নামক বিষ তৈরি করেন। যা স্বাদ গন্ধহীন আর্সেনিক, সীসা এবং বিভিন্ন রাসায়নিক মিশ্রিত।

ফার্মেসির কাজ ছেড়ে দিয়ে জুলিয়া প্রসাধনী তৈরি এবং বিক্রি শুরু করে। এর আড়ালে চলতে থাকে তার বিষের ব্যবসা। জুলিয়া মূলত অত্যাচারী পুরুষদের শায়েস্তা করতেই এটি বিক্রি করতেন। তার ক্রেতারা ছিল মূলত অত্যাচারে শিকার নারীরা। যারা তাদের স্বামীদের থেকে দিনের পর দিন অত্যাচারিত হয়ে আসছিল, এখন তারা মুক্ত হতে চায়। সেসব নারীদেরকেই মূলত জুলিয়া এই বিষ বিক্রি করত।

এই বিষের সবচেয়ে ভালো দিক হলো এর কোনো রং বা গন্ধ ছিল না। তাই সহজেই নারীরা তাদের স্বামীর খাবারে এটি অল্প করে প্রতিদিন মিশিয়ে খাওয়ানোর মাধ্যমে মৃত্যু ঘটাতো। এভাবেই দিনের পর দিন নারীরা জুলিয়ার কাছ থেকে বিষ নিয়ে যেত। জুলিয়া প্রথম ফ্রান্সেস্কা লা সারদা নামে এক নারীর কাছে বিক্রি করে অ্যাকোয়া টোফানা। জুলিয়ার ৫০ বছরের জীবনে ৬০০ এর বেশি পুরুষকে হত্যা করেছিলেন। ইতিহাস তাকে সবচেয়ে সফল সিরিয়াল কিলার হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

সূত্র: মিডিয়ামডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eight − 6 =