Templates by BIGtheme NET
২৩ চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৬ এপ্রিল, ২০২০ ইং , ১১ শাবান, ১৪৪১ হিজরী
Home » করোনাভাইরাস » মাস্ক কি, কত ধরণের, কে, কেন ও কখন এবং কতক্ষণ পরা প্রয়োজন (ভিডিও)

মাস্ক কি, কত ধরণের, কে, কেন ও কখন এবং কতক্ষণ পরা প্রয়োজন (ভিডিও)

প্রকাশের সময়: মার্চ ২৩, ২০২০, ১২:৪২ অপরাহ্ণ

মোহাম্মাদ এনামুল হক এনা: সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এ এস এম আলমগীর সম্প্রতি একটি করোনা সতর্কতামূলক অনুষ্ঠানে প্রজেক্টরে দুটো মাস্ক দেখিয়ে বলেন, আমি দুটো মাস্কের ছবি দিয়ে রেখেছি এবং আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে মাস্কের নাকি আবার এপিঠ-ওপিঠ আছে জীবনে প্রথম শুনেছি।

তিনি বলেন, আমি ২৬ বছর যাবত ইনফেকশন ডিজিজ নিয়ে কাজ করি। আমরা মাস্কের এপিঠ-ওপিঠ চিনি না কিন্তু কিন্তু আমরা মাস্ক চিনি মেডিকেল সার্জিক্যাল মাস্ক আর এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক । এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক কে পড়বে? এখানে আমরা যারা আছি আমি পড়তে পারি আর প্রফেসর ফ্লোরা পড়তে পারে।

কারণ মাঝে মাঝে ওনাকে আমাদের ল্যাবে ঢুকতে হয়। বা আমাদের পেশেন্টের কাছাকাছি চলে যেতে হয়। এছাড়া আর কারো এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক এর দরকার নাই। এন নাইনটি ফাইভ হলো রেস্পিরাটরি রেস্ট্রিকশন এবং এটা পরার জন্য ট্রেনিং করতে হয়। আমরা যখন আমাদের ছাত্র অবস্থায় ছিলাম পিএইচডি করার সময় ট্রেনিং করতাম তখন এটার জন্য তিন দিনের সার্টিফেকেট না থাকলে আমাদের ল্যাবে ঢুকতে দিতো না। বলেন ড. এ এস এম আলমগীর।

ড. এ এস এম আলমগীর বলেন, এই মাস্ক আমরা পড়তেই জানিনা তাহলে কেন সাধারন মানুষকে সাজেস্ট করবো। আর আপনি যদি ভুল করেন আর্টিফিশিয়াল রেস্পিরেশন তো ভুল করে ভিতরে ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া জমা হবে। আর যাদের শ্বাসকষ্ট আছে তারা মারাও যেতে পারেন। সো এই মাস্ক পরার আমরা যারা দীর্ঘদিন থেকে পড়ি ভিএনএল থ্রি তে কাজ করতে গিয়ে তারাও আধা ঘণ্টার বেশি একনাগাড়ে পড়িনা।

তিনি আরো বলেন, সো এটা পড়ে সাধারণ মানুষ ঘুরে বেড়াতে পারবে না। বাকি রইলো সার্জিক্যাল মাস্ক। সার্জিক্যাল মাস্কের এদিক ওদিক বলে কিছু নাই। এটা লেয়ার মাস্ক তিনটা লেয়ার আছে। যে লেয়ারগুলো উপরের দিকে সেটা বাইরে থাকবে। যে লেয়ারগুলো নিচের দিকে সেটা ভিতরে থাকবে। ভিতরের টা স্মুথ, পানি ছেড়ে দেন পড়ে যাবে। আপনি হাচি কাশি দিলে ওই যে উপরে তিনটা লেয়ার আছে সেখানে জমে থাকতে পারে। ভিজে যেতে পারে, ভিজে গেলে ফেলে দিবেন। আর ওই বাইরের যে তিনটা লেয়ার সেটা বাইরে থাকবে। নিচের দিকে যখন থাকে তখন আপনি বাইরে থেকে কোন ভাইরাস জমা করেন না।

আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক এই কর্মকর্তা বলেন, কতক্ষণ পড়বেন? কালকে রাতে আমাকে একজন প্রশ্ন করে, আচ্ছা ২৪ ঘন্টার বেশি কি একটা মাস্ক পরা যাবে? ভাই, আপনি যখন মাস্কটা একবার খুলবেন তখনই এটা শেষ। এগুলো ওয়ান টাইম ইউজ। আপনি খুলবেন তারপর গলার মধ্যে দিয়ে ভাত খাবেন এই মাস্কে কোন কাজ হয়না। মাস্ক একবারই পরতে হয়। আপনি পড়বেন খুলবেন ডিস্পোজাল মাস্ক। এখন বাংলাদেশে আপনি কখন মাস্ক পরবেন? বাংলাদেশে করোনা রিলেটেড আপনার মাস্ক পরার দরকারই নাই।

ড. এ এস এম আলমগীর বলেন, বাংলাদেশে কোন রোগী নাই যদি রোগী থাকে রোগীকে আমরা সার্জিকাল মাস্ক পরবো। আপনাকে মাস্ক পরতে হবে না, পরে রাস্তাঘাটে ঘুরতে হবে না। তবে ধুলাবালির জন্য যদি আপনি মাস্ক পড়েন সেটা আলাদা কথা। সেটা এনভায়রনমেন্টাল পলিউশন নিয়ে কথা। করোনা ভাইরাস রিলেটেড মাস্ক বাংলাদেশে পরারই কোনো প্রয়োজন নাই। এবং যদি কখনো রোগী হয় রোগী মাস্ক পড়ে থাকবে, আপনার পরার প্রয়োজন নেই। এন নাইনটি ফাইভ খুঁজতে হবে না। সাধারণ রোগীদের জন্য সার্জিক্যাল মাস্ক এবং বাংলাদেশের সব রোগীর আমরা ট্রিটমেন্ট করব। আমাদের কোনো না কোনো তত্ত্বাবধানে থাকবে।

ড. এ এস এম আলমগীর আরও বলেন, কেননা ল্যাব একটাই আমরাই। আমরাই চাচ্ছি এজন্যই কারণ, একটা ল্যাব না হইলে আমরা প্রত্যেকটা পজিটিভ পেশেন্টকে সারভিউলিস করতে হবে, কনট্রাকটিসিং করতে হবে, এবং আইসোলুশেনে রাখতে হবে। নইলে তো জনগণের মাঝে ছড়িয়ে যাবে। যতক্ষণ পর্যন্ত কমিউনিটি ট্রান্সমিশন আটকে রাখা যায় সে পর্যন্ত ল্যাবের টেস্টটা আমরাই করবো।

যদি কমিউনিটিতে ছড়িয়ে যায় তখন অবশ্য আমরাই এ্যানাউন্সমেন্ট করে দিব, এখন যাদের জ্বর সর্দি-কাশি নিয়ে হাসপাতালে আসবে এদের সবাই করোনা আক্রান্ত, দয়া করে প্রিজারমেন্টিভ ট্রেটমেন্টে চলে যান। সো ভয়ের কিছু নেই, আমরা আছি তো। আমরা এরকম ২০০৯ সালে সোয়াইন ফ্লুর সময় হাজার হাজার পেশেন্টকে ম্যানেজ করেছি। যোগ করেন ড. এ এস এম আলমগীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

two × 4 =