Templates by BIGtheme NET
২৩ আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৭ জুলাই, ২০২০ ইং , ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
Home » ধর্ম ও জীবন » পৃথিবী নিয়ে কোরআনের বিস্ময়কর ৫ তথ্য

পৃথিবী নিয়ে কোরআনের বিস্ময়কর ৫ তথ্য

প্রকাশের সময়: ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০, ৪:১০ অপরাহ্ণ

পবিত্র কোরআন একগুচ্ছ বিস্ময়ের সমষ্টি। অক্ষর থেকে শব্দ, শব্দ থেকে বাক্য অজানা সব জ্ঞান-বিজ্ঞানের উন্মুক্ত বিশ্বকোষ। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য পাঁচটি বিস্ময়কর তথ্য নিচে উল্লেখ করা হলো-

১. মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমে পৃথিবীর সূচনা: মানুষ জানতে পেরেছে মহাবিশ্বের সূচনা এক মহাবিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে ঘটেছে।
‘অবিশ্বাসীরা কি দেখে না যে সপ্তাকাশ ও পৃথিবী পুঞ্জীভূত হয়েছিল। অতঃপর আমি উভয়টি এক মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমে সূচনা করেছি।’ (সুরা: আম্বিয়া, আয়াত: ৩০)

২. পৃথিবীর জন্ম মহাকাশ সৃষ্টির আগে: ‘আপনি বলুন, সত্যিই কি তোমরা সেই মহাপ্রভুকে অস্বীকার করছ! যিনি পৃথিবীকে মাত্র দুদিনে সৃষ্টি করেছেন এবং তার অংশীদার নির্ধারণ করছ? তিনি তো সমস্ত জগতের প্রতিপালক। যিনি পৃথিবীতে তার উপরাংশে পাহাড় স্থাপন করেছেন এবং জমিনের ভিতরাংশ বরকতপূর্ণ করেছেন আর ভূগর্ভে সুষমরূপে খাদ্যদ্রব্য মজুদ করেছেন মাত্র চার দিনে। সব যাচনাকারীর জন্য সমানভাবে। অতঃপর তিনি আকাশের দিকে মনোনিবেশ করলেন আর তা ছিল ধোঁয়াশাচ্ছন্ন। (সুরা: ফুসিসলাত, আয়াত: ৯-১১)

৩. ধীরে ধীরে পৃথিবীর পরিধি সংকীর্ণ হয়ে আসছে: পদার্থবিজ্ঞানীদের গবেষণামতে পৃথিবী তার সূচনালগ্ন থেকে এ পর্যন্ত ভূগর্ভস্থ পানির এক-চতুর্থাংশ পানি হারিয়েছে।
বিজ্ঞানীদের গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, প্রতিবছর পৃথিবী তার মোট ওজন থেকে ৫০০ টন ভার হারাচ্ছে। যা থেকে তারা নিশ্চিত হয়েছে যে পৃথিবীর পরিধি ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে। মহান আল্লাহ বলেন, ‘তারা কি দেখে না আমি ভূপৃষ্ঠের পরিধি ক্রমেই সংকুচিত করে আনছি, এর পরও কি তারাই বিজয়ী!’ (সুরা: আম্বিয়া, আয়াত: ৪৪)

৪. পৃথিবী দ্রুতগতিতে ছুটছে: পবিত্র কোরআনে পৃথিবী স্থির কিংবা সূর্যের পাশে ঘূর্ণমান কোনোটিই বলা হয়নি। বরং এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে যা এসেছে তার সার কথা হলো, পৃথিবী আপন কক্ষপথে দ্রুতগতিতে সাঁতার কাটার মতো ঢেউ খেলে ছুটে চলেছে। (সুরা: ইয়াসিন, আয়াত: ৪০)

৫. পৃথিবীর নিচে বিপুল পানির উৎস: টিউবওয়েল চেপে পানি তুলছেন কিংবা পাম্পের সাহায্যে। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন ভূগর্ভের এই বিপুল পরিমাণ পানির উৎস কোথায়? তাহলে জেনে নিন, মহান আল্লাহ বলেন, ‘আমি আসমান থেকে পরিমাণমতো পানি বর্ষণ করি, অতঃপর তা ভূগর্ভে সংরক্ষণ করে রাখি।’ (সুরা: মুমিনুন, আয়াত: ১৮)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

five × five =