Templates by BIGtheme NET
১২ ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং , ২৯ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » যে কারণে বিপাকে অ্যাপল

যে কারণে বিপাকে অ্যাপল

প্রকাশের সময়: জানুয়ারি ১৭, ২০২০, ৩:২৯ অপরাহ্ণ

আইফোনের লাইটিনিং ক্যানেকটর ক্যাবল নিয়ে বিপাকে পড়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের নতুন নিয়মের কারণে ‍চার্জারটি বদলাতে হতে পারে তাদের।

দ্য সান জানিয়েছে, অ্যাপলকে ইউএসবি-সি ক্যাবল ব্যবহার করতে হতে পারে।

ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট মূলত সব নতুন ফোনের জন্য ‘কমন চার্জার’ চাইছে, যা দিয়ে সব ফোনে চার্জ দেওয়া যাবে।

অ্যাপল এই কমন চার্জার ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলোতে করতে বাধ্য হলে বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্য দেশেও করতে হতে পারে।

ইইউ তাদের পার্লামেন্টে সামনের কোনো অধিবেশনে এ বিষয়ে ভোট দেবে। তারিখ এখনো ঠিক হয়নি।

এই নিয়ম চালু হলে আইফোন ব্যবহারকারীদের বর্তমান চার্জার ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়তে পারে। হ্যান্ডসেট আপগ্রেড করলে সবাইকে নতুন চার্জার কিনতে হতে পারে।

গত ১৩ বছরে অ্যাপল দুইবার তাদের ক্যাবল পাল্টেছে। এবার তৃতীয়বারের অপেক্ষা।

প্রথম আইফোনে ৩০-পিনের ডক কানেকটর ব্যবহার করা হয়েছিল। এরপর ২০১২ সালে তারা লাইটিনিং কানেকটরে যায়। ওই সময় সবার পুরোনো চার্জার অকেজো হয়ে পড়েছিল।

ইইউ অনেক আগে থেকে ‘কমন চার্জারের’ কথা বলে আসছে। এখন নিয়মের মাধ্যমে কোম্পানিগুলোকে বাধ্য করার পরিকল্পনা চলছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, বিদ্যুতের অপচয় কমাতে এবং গ্রাহকদের জীবন আরও সহজ করতে এই সিদ্ধান্ত তাদের।

অধিকাংশ ফ্লাগশিপ অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ইউএসবি-সি পোর্ট ব্যবহার করা হয়। এর মধ্যে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস১০, গুগল পিক্সেল ৪ এবং ওয়ানপ্লাস ৭ প্রো’র মতো ফোন আছে।

অ্যাপল তাদের ম্যাকবুক এবং আইপ্যাড প্রোসহ কয়েকটি পণ্যে এই পোর্ট ব্যবহার করে থাকে।

শোনা যাচ্ছে, তাদের আইফোন ১২’তেও এই ধরনের পোর্ট রাখা হবে। সেটি করতে চাইলেও কমন চার্জারের পক্ষে নয় অ্যাপল। এর আগে এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করতে দেখা গেছে তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

17 + 4 =