Templates by BIGtheme NET
১০ মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ইং , ২৭ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিবিধ » মেশিনের কাছে যেভাবে পতন হয়েছিলো হাতে তৈরী মসলিনের

মেশিনের কাছে যেভাবে পতন হয়েছিলো হাতে তৈরী মসলিনের

প্রকাশের সময়: জানুয়ারি ১৪, ২০২০, ১২:১৫ অপরাহ্ণ

শুধুমাত্র ভোরের কুয়াশায় ১৬ বছরের কম বয়সী তরুণীর কোমল হাতের ছোঁয়ায় তৈরি হতো ঢাকাই মসলিন। সুর্য উঠলে এই কাজ বন্ধ করে দিতে হতো। বহু যত্নে গড়া মসলিন কাপড় তাই জয় করেছিলো দুনিয়ার সব মানুষের হৃদয়।

১৭৯০ সালে ঢাকা থেকে ২২ লাখ ৩৬ হাজার টাকার (তৎকালীন রুপি) পণ্য বিদেশে রপ্তানি হয়েছিল। মূলত মসলিন কাপড়ের চাহিদার কারণে এই রপ্তানী আকাশ ছুঁতে শুরু করে।

এসময় বৃটেন যন্ত্রের মাধ্যমে নানারকম কাপড় উৎপাদন শুরু করে। কিন্তু কোনটাই মসলিনের সমতূল্য ছিলো না। পর্যায়ক্রমে তারা আরো মসৃণ কাপড় উৎপাদন শুরু করলে বিশ্বে কাপড়ে মূল্য কমে আসে। ফলে পশ্চিমা ক্রেতারা কম মূল্যে উন্নত মানের কাপড় কিনতে সক্ষম হয়।

পরবর্তী ১০ বছরে বস্ত্র রপ্তানির পরিমাণ কমতে কমতে ১২ লাখ ৫৬ হাজার টাকার নেমে আসে। কিন্তু তখনও মসলিনের বাণিজ্য টিকে ছিলো। তখনো বসরা, জেদ্দা, মিসর ও তুরস্কে ঢাকাই মসলিনের চাহিদা ছিল।

১৭৮০ সালে ইংরেজরা প্রায় মসলিনের মতোই মসৃন কাপড় উৎপাদন করতে সক্ষম হয়। তবে ১৮৬২ সালে লন্ডনের এক প্রদর্শনীতে ঢাকার মসলিনই গুণগত বিচারে প্রথম স্থান অধিকার করে। ১৮১৩ সালে মসলিনের রপ্তানী ১ লাখ ২০ হাজার রুপিতে নেমে আসে। একই সঙ্গে বিলেতি কাপড় ব্যপক হারে আমদানী শুরু করে ইংরেজরা। ধীরে ধীরে হারিয়ে যায় ঐতিহ্যবাহী মসলিন

তথ্যসূত্র : এশিয়াটিক রিসার্চার জার্নাল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three × five =