Templates by BIGtheme NET
১০ মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ইং , ২৭ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » জাতীয় » বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী » প্রোটোকল ভেঙ্গে বঙ্গবন্ধুর গাড়ির দরজা খুলে দিয়েছিলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী

প্রোটোকল ভেঙ্গে বঙ্গবন্ধুর গাড়ির দরজা খুলে দিয়েছিলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশের সময়: ডিসেম্বর ২৬, ২০১৯, ৫:৫৫ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ স্বাধীনের পর পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পান বঙ্গবন্ধু। কিন্তু জেনেভা কনভেশন অনুযায়ী তার দেশে আসা সম্ভব ছিল না। তাই বঙ্গবন্ধুকে লন্ডন হয়ে ঢাকায় আসতে হয়েছিলো।

স্বাধীন দেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে এটিই বঙ্গবন্ধুর প্রথম বিদেশ সফর। আর এই সফরটি অন্য কোন দেশের সরকার প্রধানের মতো গতানুগতিক ছিলো না। অনেকটা অঘোষিত রাজকীয় সম্মান পেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু।

১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি, শনিবার দিনটি ছিলো বৃষ্টিমুখর, সেদিন সকাল ৭টায় বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসে প্রচারিত খবরে বলা হয়, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা শেখ মুজিবুর রহমান লন্ডনে আসছেন।

খবর প্রচার মাত্রই ব্রিটেন প্রবাসী হাজার হাজার বাংলাদেশির জনস্রোত তৈরী হয়। বৃষ্টি উপেক্ষা করে সেন্ট্রাল লন্ডনের ক্ল্যারেজ হোটেলের দিকে ছুটতে শুরু করেন তারা। শুধুমাত্র লন্ডন নয় বার্মিংহ্যাম, ম্যানচেস্টার থেকেও লোকজন ছুটে আসছিলেন।

তখনও বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়নি বৃটেন। কিন্তু হিথ্রো বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জে তিনি পেলেন প্রেসিডেন্টের চেয়ে বেশি মর্যাদা। সেখানে ছুটে আসেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্র অফিসের দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা স্যার ইয়ার মাদারল্যান্ড। তিনি বঙ্গবন্ধুকে জানান, ব্রিটিশ সরকারের সম্মানিত অতিথি হিসেবে নিতে এসেছেন তাঁকে।

হোটেলে অবস্থানকালেই আমেরিকার সিনেটর এডওয়ার্ড কেনেডি ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন। সেই সাত সকালেই সেখানে ছুটে এসেছিলেন সেই সময়ের ব্রিটেনের বিরোধী দলের নেতা হ্যারল্ড উইলিয়াম যিনি পরবর্তীতে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন।

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথ তাঁর সরকারি সফর সংক্ষিপ্ত করে ফিরে এসেছিলেন লন্ডনে। শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুকে সম্মান জানাতে। ৮ তারিখ বিকেল ৫টায় ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে এক বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। সেখানে যাবতীয় রীতি উপেক্ষা করে প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথ বঙ্গবন্ধুকে বহন করা গাড়ির দরজা খুলে দাঁড়িয়েছিলেন যতক্ষণ না বঙ্গবন্ধু গাড়িতে ওঠেন।

এডওয়ার্ড হিথের বঙ্গবন্ধুকে দেওয়া সম্মান নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করেছিলেন, উত্তরে হিথ বলেছিলেন, ‘আমি জানি কাকে সম্মান জানাচ্ছি, তিনি হচ্ছেন একটি জাতির মুক্তিদাতা মহান বীর। তাঁকে এই সম্মান প্রদর্শন করতে পেরে বরং আমরাই সম্মানিত হয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

2 × four =