Templates by BIGtheme NET
১৩ মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ইং , ২৯ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিবিধ » পাগলা মসজিদের সিন্ধুকে কোটি টাকা

পাগলা মসজিদের সিন্ধুকে কোটি টাকা

প্রকাশের সময়: ডিসেম্বর ১১, ২০১৯, ১২:১৮ অপরাহ্ণ

কিশোরগঞ্জ শহরের হারওয়া এলাকায় চোখ ধাঁধাঁনো এক মসজিদের নাম পাগলা মসজিদ। নরসুন্ধা নদীর তীরে এই মসজিদটি অবস্থিত। এই মসজিদকে ঘিরে আছে নানান জনশ্রুতি।

স্থানীয় লোকগাঁথা মতে, প্রায় ২ শত বছর আগে প্রমত্তা নরসুন্ধা নদের বুকে একজন পাগল ব্যাশি সাধকের আর্বিভাব ঘটে। তার কল্যাণে নদীর বুকে চর জেগে উঠে। তিনি মারা যাওয়ার পর তার কবরের পাশে প্রতিষ্ঠা করা হয় এ মসজিদ।

স্থানীয়দের বিশ্বাস এই মসজিদে দান করলে মনের আশা পূরণ হয়। তাই ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে অনেকেই এখানে দান করেন। কয়েক মাস পর পর এখানকার দানবাক্স খোলা হয়।

সর্বশেষ চলতি বছরের অক্টোবরে দানবাক্স খুলে ১ কোটি ৫০ লাখ ৮৪ হাজার টাকা পাওয়া গেছে। শুধু টাকা নয় মসজিদের বানবাক্সে স্বর্ণালঙ্কার ও বিদেশি মুদ্রাও পাওয়া গেছে।

পাগলা মসজিদে মানত করার একটি বিশেষ কারণ হচ্ছে, এখানকার সব মানুষই বিশ্বাস করে আসল নিয়তে যদি কেউ দান করে তবে তার মনের ইচ্ছা পূরণ হয় তাই সব ধর্মের লোকেরা এখানে দান করেন।

তিন মাস পর পর দান বাক্স খোলা হয় আর সেখানে প্রতিবারই কোটি টাকার উপরে পাওয়া যায়। অর্থকড়ি ও স্বর্ণালঙ্কার ছাড়াও  গরু ছাগল মুরগিও মানত করেন অনেকে।

৩ একর ৮৮ শতাংশ জায়গার উপর নির্মিত দৃষ্টিনন্দন এই মসজিদে নারীদের জন্য আছে  নামাজের আলাদা ব্যবস্থা। পাশেই আছে বিশাল এতিমখানা। সরাসরি জেলা প্রশাসন থেকে আর্থিক ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

এই মসজিদের দানবাক্স থেকে প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে কিশোরগঞ্জ এলাকার প্রাচীণ মসজিদ সমূহের সংস্কার কাজ ছাড়াও অভাবী মানুষজনের লেখাপড়া, চিকিৎসা ও বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

15 − 8 =