Templates by BIGtheme NET
২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৫ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
Home » খেলাধূলা » বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট ২২ নভেম্বর
দিবা-রাত্রি ও গোলাপি বলে খেলা টেস্টের অতীত ইতিহাস

বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট ২২ নভেম্বর
দিবা-রাত্রি ও গোলাপি বলে খেলা টেস্টের অতীত ইতিহাস

প্রকাশের সময়: নভেম্বর ২০, ২০১৯, ১০:২০ অপরাহ্ণ

আগামী ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেনে অনুষ্ঠিত হবে ভারতের প্রথম দিন-রাতের টেস্ট। ঐতিহাসিক এই ম্য়াচে মুখোমুখি হবে ভারত-বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি হতে যাচ্ছে ১২তম দিনরাতের ম্যাচ। এ নিয়ে ক্রিকেট দুনিয়ায় উত্তেজনার পারদ এখন তুঙ্গে। কারণ ভারত কিংবা বাংলাদেশ কোন দলই এখন পর্যন্ত দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলেনি। এছাড়া এই টেস্টে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিম বঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। এতে বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে ম্যাচটি।

প্রথম ও শেষবার গোলাপি বলের টেস্ট কারা খেলেছে?
২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর অ্যাডিলেড ওভালে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট অনুষ্ঠিত হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়া- নিউজিল্য়ান্ডের মধ্যকার অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচ অজিরা চার উইকেটে জিতেছিল। অন্যদিকে চলতি বছর জানুয়ারিতে ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়া আর শ্রীলঙ্কা দিন-রাতের টেস্ট খেলেছে। অজিরা ইনিংস ও ৪০ রানে জেতে।

দিবারাত্রির টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি
দিবা-রাত্রির টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক। ৫টি দিবারাত্রির টেস্ট খেলে তার সংগ্রহ ২৬ উইকেট। এই তালিকায় তার পরের অবস্থানেই আছে আরেক অস্ট্রেলিয়ান পেসার জস হ্যাডেলউড। তিনি ৪টি দিনরাতের টেস্টে শিকার করেছেন ২১ উইকেট।

গোলাপি বলে সেরা বোলিং ফিগার
দিনরাতের টেস্ট ম্যাচে সেরা বোলিং ফিগার ৬২/১০। ২০১৯ সালে ব্রিসবেনে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ইনিংসে মিলিয়ে ১০ উইকেট নেন অস্ট্রেলীয় পেসার প্যাট কামিন্স। গোলাপি বলের ক্রিকেট ইতিহাসে এক ম্যাচে এটাই এখন পর্যন্ত কোনও বোলারের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের নজির।

ইডেনে দিবা-রাত্রির টেস্টে ভারতের অভিষেক
বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচটি কলকাতার ইডেন গার্ডেন অনুষ্ঠিতব্য প্রথম দিন-রাতের ম্য়াচ নয়। ঘটনাচক্রে ইডেনেই অনুষ্ঠিত হয়েছিল ভারতের প্রথম গোলাপি বলে ডে-নাইট ম্য়াচ। ২০১৬ সালের ১৮ জুলাই ভারতে প্রথম গোলাপি বলে খেলা হয়েছিল এই ইডেনেই। সিএবি সুপার লিগের ফাইনালে ভবানীপুরকে ২৯৬ রানে হারিয়েছিল মোহনবাগান। সেই ম্যাচে মোহাম্মদ শামি নিয়েছিলেন পাঁচ উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

fourteen + four =