Templates by BIGtheme NET
২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিশেষ সংবাদ » শ্রমিক লীগের শীর্ষ পদে আলোচনায় যারা

শ্রমিক লীগের শীর্ষ পদে আলোচনায় যারা

প্রকাশের সময়: নভেম্বর ৮, ২০১৯, ৪:২৫ অপরাহ্ণ

আগামী ৯ নভেম্বর দীর্ঘ ৭ বছর পর শ্রমিক লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনটির সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার পর থেকেই নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। দলটিকে আরো সুচারুভাবে সাজাতে স্বচ্ছ, ত্যাগী, সাবেক ছাত্রলীগের নেতাদেরকে অগ্রাধিকার দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।

আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা বলেছেন, তারুণ্য নির্ভর, ত্যাগী ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তি পূর্ণ নেতাদেরকেই নেতৃত্ব আনা হবে। সে অনুযায়ী দলের শীর্ষ পদে বয়সের তারতম্যের কারণে বাদ পড়তে পারে অনেকেই। সেই সঙ্গে অনুপ্রবেশকারী, টেন্ডার ও চাঁদাবাজি এবং ক্যাসিনো পরিচালনার সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত নেতাদের নেতৃত্ব থেকে বাদ দেওয়া হবে।

এখন পর্যন্ত শ্রমিক লীগের সভাপতি হিসেবে আগ্রহ দেখাচ্ছেন, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান আকন্দ। দীর্ঘদিন ঢাকা মহানগরের দায়িত্ব পালন করা এই নেতা রেলওয়ে শ্রমিক লীগের শীর্ষ পদে ছিলেন। আর সংগঠনের চ্যালেঞ্জিং মূহুর্তে দলের সভাপতি হতে চান বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামও। আলোচনায় আছেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির, সহ-সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, সহ-সভাপতি আমিনুল হক ফারুক ও নওগাঁ থেকে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত এমপি ইসরাফিল আলম।

শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান আকন্দ বলেন, সংগঠন পরিচালনার জন্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা যাকে যোগ্য মনে করবেন তাকেই দায়িত্ব দেবেন।

অন্যদিকে দলটির সাধারণ সম্পাদক হতে চান, বর্তমান কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব মোল্লা, সফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল আলম মিলকী, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক সুলতান আহমেদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. শাহাবুদ্দিন মিয়া। এছাড়া আলোচনায় আছেন, শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ, প্রচার সম্পাদক আজম, শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক আবদুল হালিম।

সরেজমিনে দেখা যায়, দলের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে প্রতিদিনই শ্রমিক লীগের পদপ্রত্যাশী নেতাদের পদচারণায় মুখর থাকে ধানমণ্ডি আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় ও বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়। আর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে কারা আসতে পারেন সে বিষয়ে সাধারণ নেতাকর্মীরা করছেন আলোচনা-সমালোচনা।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব মোল্লা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ও শেখ হাসিনার আদর্শের রাজনীতি করি। নেত্রী যাকে সংগঠনের দায়িত্ব দেবেন তার সঙ্গে কাজ করে শেখ হাসিনার হাতকে ও শ্রমিক লীগকে আরো শক্তিশালী করার চেষ্টা করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

19 + 17 =