Templates by BIGtheme NET
২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিশেষ সংবাদ » যে বলিষ্ঠ ও দৃঢ় কন্ঠ আর কখনোই শোনা যাবে না

যে বলিষ্ঠ ও দৃঢ় কন্ঠ আর কখনোই শোনা যাবে না

প্রকাশের সময়: নভেম্বর ৭, ২০১৯, ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

না ফেরার দেশে চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও চট্টগ্রাম–৮ আসন থেকে নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য (এমপি) মঈন উদ্দীন খান বাদল।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ভারতের বেঙ্গালুরুর নারায়ণ হৃদরোগ রিসার্চ ইনস্টিটিউট অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

বাদলের ভাই মনির খান জানান, দুই বছর আগে ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে গুরুতর অসুস্থ ছিলেন বাদল। হার্টেরও সমস্যা ছিল। দুই সপ্তাহ আগে নিয়মিত চেকআপের জন্য তাকে ভারতে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। মরহুমের মরদেহ দ্রুত বাংলাদেশে আনা হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, প্রবীণ এই রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এছাড়া শোক জানিয়েছেন, স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি জন্ম নেয়া মঈন উদ্দীন খান বাদল বোয়ালখালি উপজেলা জাসদের সভাপতি ছিলেন। ছিলেন চট্টগ্রাম ৮ আসনের তিন বারের সংসদ সদস্য।

মঈন উদ্দীন খান বাদল যখন সংসদে বক্তব্য রাখতেন তখন সেখানকার উপস্থিত সাংসদরা নীরবে তার ভাষণ শুনতেন। এরকম বলিষ্ঠ ও দৃঢ় কন্ঠ আর কখনোই শোনা যাবে না। বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বরের কারণে সংসদে বেশ সুনাম রয়েছে তার। প্রতিটি সংসদ অধিবেশনেই থাকে তার সপ্রতিভ ক্ষুরধার বক্তব্য। তিনি অত্যন্ত যুক্তিসহকারে তার বক্তব্য উপস্থাপন করতেন।

উল্লেখ্য, ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে উঠে আসা বাদল ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। বাঙালিদের ওপর আক্রমণের জন্য পাকিস্তান থেকে আনা অস্ত্র চট্টগ্রাম বন্দরে সোয়াত জাহাজ থেকে খালাসের সময় প্রতিরোধের অন্যতম নেতৃত্বদাতা ছিলেন বাদল।

মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বাদল সমাজতান্ত্রিক রাজনীতির প্রতি আকৃষ্ট হন। জাসদ, বাসদ হয়ে পুনরায় জাসদে আসেন। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ১৪ দল গঠনেও বাদলের ভূমিকা ছিল।

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 + ten =