Templates by BIGtheme NET
১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৭ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » নতুন প্রযুক্তির প্রচারণা শুরু করেছে টাচ সেন্সর প্রতিষ্ঠান সেনটনস

নতুন প্রযুক্তির প্রচারণা শুরু করেছে টাচ সেন্সর প্রতিষ্ঠান সেনটনস

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ২০, ২০১৯, ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ

প্রযুক্তি ডেস্ক :

নিজেদের নতুন প্রযুক্তির প্রচারণা শুরু করেছে ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক টাচ সেন্সর প্রতিষ্ঠান সেনটনস। নতুন এ প্রযুক্তিটি স্মার্টফোন বাটনের বিকল্প হিসেবে কাজ করবে।

সেনটনসের তৈরি প্রযুক্তিটি মূলত নতুন আঙ্গিকের সেন্সর সিস্টেম। এ প্রক্রিয়ায় আলট্রাসনিক তরঙ্গকে কাজে লাগিয়ে ব্যবহারকারীর স্পর্শ, চাপ এবং সোয়াইপ শনাক্ত করতে পারবে স্মার্টফোন – খবর রয়টার্সের।

নিজেদের গেইমিং স্মার্টফোনে এরই মধ্যে এই সেন্সর সিস্টেম ব্যবহার করেছে তাইওয়ানের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আসুস এবং তাদের অংশীদারি প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট হোল্ডিংস। এ বছরের গ্রীষ্মেই চীনে বাজারজাত করা হয়েছে ফোনটি।

নতুন এ প্রযুক্তিতে ফোনটিকে আড়াআড়িভাবে ধরলেই সেন্সরটি কাজ শুরু করে দেয় বলে জানিয়েছে রয়টার্স। আরও সুনির্দিষ্ট করে বললে, ব্যবহারকারীর তর্জনি ফোনের প্রান্ত স্পর্শ করলেই চালু হয়ে যায় সেন্সরটি। ফলে শুধু বৃদ্ধাঙ্গুল ও তর্জনী ব্যবহার করেই গেইম খেলা সম্ভব হয়।

আসুসের পাশাপাশি আরও নতুন দু’টি স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করার কথাও জানিয়েছে সেনটনস। নতুন এ প্রযুক্তিটির গবেষণার কাজে নেতৃত্ব দিয়েছেন সেনটনস প্রধান জেস লি, পেশায় তিনি প্রকৌশলী। লি, নিজের প্রথম প্রতিষ্ঠানটি বিক্রি করে দিয়েছিলেন মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপলের কাছে।

নিজেদের নতুন প্রযুক্তি প্রসঙ্গে লি বলেন “টাচ স্ক্রিন অসাধারণ একটি প্রযুক্তি। কিন্তু কীভাবে এটিকে আরও উন্নত করা সম্ভব তা ফোন নির্মাতারা ঠিক বুঝে উঠতে পারছে না। যেভাবে প্রতিনিয়ত ফোনের বাহ্যিক গঠনে পরিবর্তন আসছে, তাতে পরিষ্কার বুঝা যায়, ভবিষ্যতে আসলে ফোনে কোনো বাটন থাকবে না।”

রয়টার্স জানিয়েছে, সেনটনস-এর নতুন এই সেন্সর প্রক্রিয়া প্রযুক্তির মূলে রয়েছে শব্দ তরঙ্গ পাঠাতে পারে এমন বিশেষ চিপ। ওই চিপের সঙ্গে আবার জুড়ে দেওয়া হয়েছে প্রসেসর এবং অ্যালগরিদম। প্রসেসর ও অ্যালগরিদমের সাহায্যে বিভিন্ন রকমের আকৃতি ও স্পর্শ শনাক্ত করার কাজটি সম্পন্ন হয়ে থাকে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সেনটনস নতুন একটি প্রতিষ্ঠান। সবমিলিয়ে মাত্র ৫০ জন কর্মী রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three × 5 =