Templates by BIGtheme NET
৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২১ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » জাতীয় » কেন বাংলাদেশে এতো বিদেশি কর্মী?

কেন বাংলাদেশে এতো বিদেশি কর্মী?

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ১৯, ২০১৯, ৫:০৫ অপরাহ্ণ

এ জেড ভূঁইয়া আনাস : বাংলাদেশে বর্তমানে প্রায় ৫ লাখ বিদেশি শ্রমিক কর্মরত। যদিও বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটি-বিডা থেকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে ১ লাখ বিদেশি জনশক্তিকে। সে হিসেবে প্রায় ৪ লাখ বা তারও অধিক সংখ্যক বিদেশি বাংলাদেশে অবৈধভাবে কাজ করছেন। প্রশ্ন উঠেছে কেন বাংলাদেশে এতো বিদেশি কাজ করছেন?

নিয়োগ দাতাদের তথ্য মতে, বাংলাদেশে ফ্যাশন ও ডিজাইনিং, ভারী যন্ত্রপাতি পরিচালনা, বিপণন, সরবরাহ চেইন ব্যবস্থাপনাসহ অন্যান্য খাতে দক্ষ কর্মীর যথেষ্ট ঘাতটি রয়েছে। ঘাটতি পূরণে বিদেশি কর্মী নিয়োগ দিয়ে উন্নয়ন, উৎপাদন ও রপ্তানি কার্যক্রম চলমান রাখা হচ্ছে। এছাড়া বস্ত্র ও তৈরি পোশাক খাতে অধিক সংখ্যক বিদেশি কর্মী নিয়োগ পাচ্ছে।

শ্রম ও কর্মসংস্থান বিষয়ক বিভিন্ন সংস্থার তথ্য মতে, প্রতি বছর দেশে কয়েক হাজার তরুণ–তরুণী স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করে কর্মসংস্থান খোঁজ করেন। তবে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কর্মমুখী না হওয়ায় তারা চাকরি পেতে বিপাকে পড়েন।

এ ছাড়া মেধাবী শিক্ষার্থীরা উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে পাড়ি জমান। তাই পড়ালেখা শেষ করে দেশের বেতন কাঠামো পছন্দসই না হওয়ায় অনেকেই বিদেশে বিভিন্ন চাকরিতে যুক্ত হচ্ছেন। ফলে দেশে দক্ষ কর্মীর অভাব দেখা দেয়।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, দক্ষ জনশক্তির অভাবেই বিদেশি কর্মীদের মাধ্যমে দেশ থেকে প্রতি বছর কোটি কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ চলে যাচ্ছে দেশের বাইরে। শুধুমাত্র ভারতেই যাচ্ছে প্রায় ৫০০ কোটি ডলার।

বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্স এসোসিয়েশনের সাবেক প্রেসিডেন্ট ব্যবসায়ী নেতা ফজলুল হক জানান, বাংলাদেশের বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানি, গার্মেন্টস, ওষুধ কোম্পানি কিংবা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে কাজ করছেন বিদেশি নাগরিকরা। এর মধ্যে শীর্ষে আছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। এছাড়া পাকিস্তান, ফিলিপাইন, কোরিয়া ও চীন থেকে আসা কর্মীও রয়েছেন চোখে পড়ার মতো।

দেশে মিড লেভেল ও টপ লেভেলের প্রফেশনালদের বড় ধরনের ঘাটতি রয়েছে। প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় শিক্ষিত হয়ে আসা কর্মীরা চাহিদা মেটাতে পারছে না। ফলে বাধ্য হয়ে বিদেশ থেকে এসব কর্মী আনতে হচ্ছে। পেশাগত দক্ষতার অভাব পাশাপাশি ভাষাগত দক্ষতারও অভাব রয়েছে। বিশেষ করে ইংরেজি ভাষার দক্ষতা এবং পেশাগত কৌশলের ঘাটতি রয়েছে দেশীয় কর্মীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

17 + 9 =