Templates by BIGtheme NET
৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২১ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
Home » জাতীয় » যেভাবে এলো ভাসমান কৃষি পদ্ধতি

যেভাবে এলো ভাসমান কৃষি পদ্ধতি

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ১৬, ২০১৯, ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ, কিন্তু দেশের বেশির ভাগ এলাকা নিন্মাঞ্চাল হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতায় নিমজ্জিত থাকে। উত্তরাঞ্চলের হাওড় এলাকা শুকনো মৌসুমেও পানিতে ডুবে থাকে। সে কারণে দানা-শষ্যসহ সবজি উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। আর এ কারণে কৃষি প্রধান বাংলাদেশে বর্ষা মৌসুমে কিছু কিছু অঞ্চলে সবজির আকাল দেখা যায়।

এ দিকটা বিবেচনা করে গবেষণা শুরু করেন বাংলাদেশের কৃষি বিজ্ঞানীরা। তেমনি এক গবেষণায় ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছেন কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা। তারা আবিষ্কার করেন ভাসমান কৃষি পদ্ধতি। এতে সফলও হন তারা।

ভাসমান কৃষি বিষয়ক গবেষণা কর্মসূচির প্রধান গবেষক ড. মো. আলীমুর রহমান জানান, ২০১৪ সালে এ পদ্ধতিতে প্রথম সবজি চাষ শুরু করা হয়। ইতোমধ্যে গবেষণা মাঠে ‘ভাসমান বেড ও মাঁচা পদ্ধতিতে’ চাষকৃত লতাজাতীয় সবজি যেমন- শসা, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, চালকুমড়া, চিচিঙ্গা, বরবটি, করলা প্রভৃতি ফসলের আশাব্যাঞ্জক ফলন পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল -এর তথ্য অনুযায়ী দেশে প্রায় ৩০ লাখ হেক্টর মধ্যম নিচু থেকে অতি নিচু জমি রয়েছে যা দেশের মোট ভূমির শতকরা প্রায় ২১ ভাগ। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, বর্ষাকালে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত, হঠাৎ উপকূলীয় বন্যার কারণে সারা দেশে ব্যাপক এলাকা জলমগ্ন থাকে। এর মধ্যে দেশের দক্ষিণাঞ্চল ও হাওড় অঞ্চল অন্যতম।

এ বিষয়ে রহমতপুর আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আব্দুল ওহাব বলেন, ঘর-বাড়ি, রাস্তা-ঘাট, কল-কারখানা নির্মাণের ফলে প্রতিবছর চাষের জমি কমে যাচ্ছে। গত তিন দশকে দেশে প্রায় ৩০ লাখ হেক্টর কৃষি জমি কমে গেছে এবং এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য পাশাপাশি শাক-সবজিকে তীব্র প্রতিযোগিতা করে টিকে থাকতে হচ্ছে। কৃষি জমি হ্রাসের ফলে বিকল্প উপায়ে সবজি চাষে সফলতা অর্জন করা সম্ভব।

এতে ফসলের সার্বিক উৎপাদন বাড়বে যা পরিবর্তিত জলবায়ুগত পরিস্থিতিতে দেশের জলমগ্ন এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তায় বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলেও মনে করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

2 × 2 =