Templates by BIGtheme NET
৩০ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৫ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিবিধ » পেঁয়াজের বিকল্প হতে পারে চিভ

পেঁয়াজের বিকল্প হতে পারে চিভ

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ১০, ২০১৯, ১২:১১ অপরাহ্ণ

বাঙালির রসনাবিলাসের অন্যতম অনুষঙ্গ পেঁয়াজ। ক’দিন আগে ভারত রফতানি বন্ধ করে দেয়ায় হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বেড়ে কেজিতে ১০০ টাকা ছাড়িয়ে যায়। এমন সংকটকালের জন্য পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে দেশের বিজ্ঞানীরা এখন চিভ নামে পেঁয়াজ প্রজাতির একটি ফসলের চাষ ও ব্যবহারে উৎসাহ বাড়াতে কাজ করছেন।

চিভের উৎপত্তিস্থল সাইবেরিয়া, মঙ্গোলিয়া ও উত্তর চীন অঞ্চল। চীনের জনপ্রিয় একটি মসলা ফসলের তালিকায় অবস্থান এ চিভের। অন্যান্য ফসলের পাশে বা বাড়িতে টবেও এটি চাষ করা যায়। ২০১৭ সাল থেকে স্বল্প পরিসরে দেশে এখন চিভের চাষ হচ্ছে।

বাংলাদেশের মাটি, জলবায়ু ও আবহাওয়া চিভ চাষের জন্য বেশ অনুকূল। বছরব্যাপী চাষ করা যায় বলে এটি সম্ভাবনাময় একটি মসলা যা পেঁয়াজ ও রসুনের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরতা কমাতে সহায়ক হবে বলে জানান কৃষি বিজ্ঞানীরা।

পৃথিবীর অনেক দেশে চিভ স্যুপ, সালাদ ও চাইনিজ ডিশে ব্যবহূত হয়। এর পাতা লিলিয়ান আকৃতির ফ্ল্যাট, পাতার কিনারা মসৃণ ও এর বাল্ব লম্বা আকৃতির। এর ফুল সাদা-বেগুনি বর্ণের। চিভের ঔষধি গুণও রয়েছে। এটি হজমে সাহায্য করে, রোগ নিয়ন্ত্রণ করে এবং এর মধ্যে ক্যান্সার প্রতিরোধী গুণাগুণ রয়েছে। এছাড়া আন্তঃফসল হিসেবে চাষ করার মাধ্যমে এটি কলার পানামা রোগ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

এ বিষয়ে মসলা ফসল বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পেঁয়াজ-রসুনের বিকল্প হিসেবে আদর্শ মসলা হিসেবে চিভ দেশে ব্যাপকভাবে চাষ করা গেলে পেঁয়াজের ঘাটতি মেটানো সম্ভব হবে পাশাপশি আমদানি নির্ভরতা কমে আসবে।

চিভ সাধারণত দেশের পাহাড়ি এলাকা সিলেট ও চট্টগ্রামে চাষ হয়ে থাকে। তাছাড়া পেঁয়াজ উৎপাদনকারী এলাকা পাবনা, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, মাগুরা, বগুড়া ও লালমনিরহাট এলাকায় চিভ চাষের উজ্জ্বল সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। একবার চিভ গাছ লাগালে দীর্ঘদিন ধরে ফসল পাওয়া যায়। চাষ করা যায় বাড়ির আঙিনায় ক্ষুদ্রায়তনে বা টবে।

বীজ থেকে চারা তৈরি করে চিভ চাষ করতে হয়। চারা লাগানোর ৬৫-৭০ দিন পর ফসল সংগ্রহ করা যায়। গাছের গোড়া থেকে ২-৩ ইঞ্চি উপর থেকে পাতা কেটে অথবা পুরো গাছ উঠিয়েই ফসল সংগ্রহ করা যায়। প্রতিটি গাছ থেকে বছরে পাঁচ-ছয়বার ফসল পাওয়া যায়। পাতা ও গাছসহ প্রতি হেক্টরে ১০-১২ টন ফলন পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

1 + 13 =