Templates by BIGtheme NET
৩০ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৫ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » আন্তর্জাতিক » ভয়ংকর সিরিয়াল কিলার
যে কারণে ৯৩ জন নিরপরাধকে খুন করেছেন ঘাতক

ভয়ংকর সিরিয়াল কিলার
যে কারণে ৯৩ জন নিরপরাধকে খুন করেছেন ঘাতক

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৯, ২০১৯, ৫:৩১ অপরাহ্ণ

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দী এক সাজাপ্রাপ্ত খুনি এ পর্যন্ত ৯৩টি খুনের কথা স্বীকার করার পর এফবিআই তাকে দেশটির ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ংকর সিরিয়াল খুনি বলে নিশ্চিত করেছে।

স্যামুয়েল লিটল নামের ৭৯ বছর বয়সী এই ব্যাক্তিকে পুলিশ অন্তত ৫০টি খুনের ঘটনায় জড়িত বলে দেখতে পেয়েছে। এসব খুনের ঘটনা ঘটেছে ১৯৭০ সাল হতে ২০০৫ সালের মধ্যে।

নথি বলছে, স্যামুয়েল লিটলের বিরুদ্ধে গত পঞ্চাশ বছর ধরে ৯০টিরও বেশি হত্যার অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে, আশির দশকে লস অ্যাঞ্জেলসে তিন নারীকে খুন করার অপরাধে আপাতত তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ভোগ করতে হচ্ছে।

আমেরিকার অপরাধ ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংখ্যক খুনের রেকর্ড রয়েছে সিরিয়াল কিলার ‘দ্য গ্রিন রিভার কিলার’ গ্যারি রিজবির। ১৯৮০-৯০ এর দশকে ওয়াশিংটনে মোট ৪৯ জনের প্রাণ নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন লিটল।

তবে বছরের পর বছর একের পর এক নারীকে হত্যা করেও কীভাবে পুলিশের চোখে ধুলা দিয়েছিলেন স্যামুয়েল? জটিল এই প্রশ্নের ব্যাখ্যা দিয়েছেন অপরাধী নিজেই।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, স্যামুয়েল লিটল গোয়েন্দাদের কাছে প্রতিটি হত্যাকান্ডের খুঁটিনাটি বিবরণ দিয়েছেন উৎসাহভরে। জেরার মুখে ভেঙে পড়া দূরের কথা, অপরাধ স্বীকার করার সময় মাঝেমধ্যে তাকে শব্দ করে হেসে উঠতেও দেখা যায়।

মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগ বলছে, পানশালা বা অন্যত্র নেশাসক্ত একলা নারী দেখলে নিজে থেকে এগিয়ে গিয়ে আলাপ জমাতেন ঘাতক। একত্রে নেশা করার টোপ দিয়ে বা যৌন মিলনের প্রস্তাব দিয়ে মেয়েটিকে নিজের গাড়ির পেছনের আসনে বসাতেন। কথা বলতে বলতেই গলা টিপে হত্যা করতেন সেই মেয়েকে।

আরও জানা যায়, স্যামুয়েলের মস্তিষ্কে প্রচন্ড যৌন উত্তেজনা থাকলেও শারীরিকভাবে ছিল অক্ষম। ফলে কোনো নারীর সাথে যৌনমিলনে লিপ্ত হতে পারত না সে। সে জন্যই রাগে ক্ষোভে প্রত্যেককে শ্বাসরোধে হত্যা করেছেন।

মনোবিদরা বলেন, সম্ভবত প্রাণহানির মাধ্যমেই যৌনসুখ উপভোগ করতো বিকৃত মস্তিষ্কের এই খুনী।

অবাক বিষয় হচ্ছে, মার্কিন এই সিরিয়াল কিলারের মনে তার কৃতকর্মের জন্য বিন্দুমাত্র অনুশোচনা নেই। স্যামুয়েল লিটলের যুক্তি, ঈশ্বর আমাকে এভাবেই গড়েছেন। তাই তার করুণাভিক্ষা করার প্রয়োজন নেই। তিনি আমার সব কাজ সম্পর্কেই জানেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eighteen − seven =