Templates by BIGtheme NET
৩০ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৫ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিনোদন » ঢাকাই ছবিতে আন্ডারওয়ার্ল্ড বিতর্ক

ঢাকাই ছবিতে আন্ডারওয়ার্ল্ড বিতর্ক

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৮, ২০১৯, ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ

শোবিজ প্রতিবেদক: ‘আগুন’ সিনেমার মহরতে আরমান (ডান দিক থেকে তৃতীয়)

ঢাকাই সিনেমার নায়িকা শিরিন শিলার ওপর নজরদারির মাধ্যমে আরমানের খোঁজ পেয়েছে র‌্যাব। গোপন সূত্রে জানা যায়, এই নায়িকার সঙ্গে আরমানের গভীর সম্পর্ক ছিল। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে শিরিন শিলার উত্থানের পেছনে ছিল আরমানের প্রত্যক্ষ প্রভাব ও মদদ।

রুপালি পর্দার ঝলমলে জীবনের আড়ালে অন্ধকার জগৎ তথা আন্ডারওয়ার্ল্ডের একটা যোগসূত্র থাকে। হলিউড মাফিয়া থেকে বলিউড এমনকি ঢাকাই চলচ্চিত্রেও এমন গুঞ্জন শোনা যায় হরহামেশাই। সাম্প্রতিক যুবলীগ বিতর্কে এমন করেই ওঠে এসেছে যুবলীগ নেতা আরমানের নাম। দীর্ঘদিন ধরে চলচ্চিত্রে বেনামে অর্থলগ্নি করার কথা চলচ্চিত্রের মানুষের কাছ থেকেই জানা যায়। চলতি বছর স্বনামেই প্রযোজনায় আসেন তিনি। খুলে বসেন প্রযোজনা সংস্থা ‘দেশবাংলা মাল্টিমিডিয়া’। এই সংস্থা থেকে প্রথমেই প্রযোজনা করেন নায়িকা বুবলী ও শাকিব খানকে নিয়ে চলচ্চিত্র ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’। ছবিটি গত ঈদুল আজহায় মুক্তি পায়। এরপর তিনি প্রযোজনা করেন ‘আগুন’ ছবিটি। এ ছবির নায়িকা হলেন মডেল জাহারা মিতু। আর নায়ক শাকিব খান।

ছবিটি এখন নির্মাণাধীন রয়েছে। বর্তমানে কক্সবাজারে এ ছবির শুটিং চলছে। আরমানের ঢাকাই ছবি বিতর্কে অনেকদিন ধরেই রুপালি পর্দার বেশকিছু নায়িকার নাম ওঠে এসেছে। নায়িকারা বরাবরই সে অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন। তবে এবার চূড়ান্ত বিতর্কে জড়ালেন চিত্রনায়িকা শিরিন শিলা। যুবলীগ বিতর্কে ওঠে এসেছে তার নাম। জানা গেছে ঢাকাই সিনেমার নায়িকা শিরিন শিলার ওপর নজরদারির মাধ্যমেই আরমানের খোঁজ মিলেছে। গোপন সূত্রে প্রকাশ, এই নায়িকার সঙ্গে আরমানের গভীর সম্পর্ক ছিল। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে শিরিন শিলার উত্থানের পেছনে ছিল আরমানের প্রত্যক্ষ প্রভাব ও মদদ। প্রথমদিকে আরমান বেশকিছু সিনেমায় বেনামে অর্থলগ্নি করেন। সেই সিনেমাগুলোতে শিরিন শিলাকে নায়িকা হিসেবে সুযোগ দেওয়া হয়। চলচ্চিত্রের বেশকিছু মানুষ বলছেন, যুবলীগ নেতা আরমানের চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্টতা বেশ পুরনো। অনেক বছর যাবৎ বেনামে সিনেমায় অর্থ লগ্নি করে এসেছেন তিনি। তবে সম্প্রতি প্রকাশ্যে সিনেমা নির্মাণে জড়িয়ে পড়েন তারা। দেশবাংলা মাল্টিমিডিয়া নামের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটির প্রযোজক হিসেবে শাকিব খান ও বুবলীকে নিয়ে ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ শীর্ষক সিনেমাটি নির্মাণ করেন আরমান। সিনেমাটি চূড়ান্ত ব্যর্থ হলেও আরমান পূর্ণ উদ্যোমে আরও একাধিক ছবি নির্মাণের ঘোষণা দেন। সেই ধারাবাহিকতায় শীর্ষ পর্যায়ের মন্ত্রী ও সম্রাটের উপস্থিতিতে শাকিব খান ও জাহরা মিতুকে নিয়ে আগুন ছবির মহরত করা হয়। ‘আগুন’ ছবির শুটিং শুরু হলেও সেটি এখন অনিশ্চয়তার মুখে।

অনিশ্চয়তায় পড়েছে দেশবাংলার কার্যক্রমও। দেশবাংলার আরও একাধিক ছবির পাইপলাইনে নায়িকাদের দৌড়ে শিরিন শিলাও ছিলেন বলে জানা গেছে। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে মাফিয়া কালচার আর কালো টাকার সঙ্গে চলচ্চিত্রের রঙিন দুনিয়ার যে পুরনো যোগসূত্র সেটাই যেন নতুন করে ডালপালা মেলল সাম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া দেশের কিছু ঘটনায়। বেরিয়ে এলো আরমানসহ অনেকের নাম। এসব মাফিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের কথা নায়িকারা বারবার অস্বীকার করলেও এমনি এমনি তাদের নাম ওঠে আসেনি বলে মনে করছেন চলচ্চিত্রঘেঁষা অনেকেই। রাজনৈতিকসংশ্লিষ্টতা থাকার কারণে কেউ প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে রাজি হননি। কিন্তু অভিনয় না জানা অশিক্ষিত এইসব নায়িকা এ ধরনের প্রযোজকের ঘাড়ে চেপে সিনেমার বারোটা বাজানোর যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল সেটি থেমে যাওয়ায় অনেকেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। কেউ কেউ আবার হতাশ, কারণ ঢাকাই ছবির দুর্দিন আর প্রযোজকের খরায় বেশকিছু ছবির কাজ থমকে যাওয়ায় অনেকেই বিপাকে পড়বেন। সিনেমার সুন্দরীদের অন্ধকার গলি-ঘুপচি ঘুরে বেড়ানোর এই গোপন সত্য উন্মোচিত হলে সত্যি সত্যি বিপাকে পড়বেন শিরিন শিলা ও তার মতো আরও অনেক মডেল-নায়িকা।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আরমানের সঙ্গে সম্পর্কের অভিযোগ অস্বীকার করেন শিরিন শিলা। তিনি বলেন, ‘আরমানের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। এ সবই মিথ্যা।’ এদিকে ক্যাসিনোকান্ডে শোবিজ অঙ্গনের বেশ কজন মডেল-নায়িকার নাম উঠে এসেছে। আরমানসহ আটক ক্যাসিনো ব্যবসায়ীরা নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য এই মডেল-নায়িকাদের ব্যবহার করতেন বলে স্বীকার করেছেন। এর জন্য তারা ঢাকাই ছবির জগৎকে বেছে নিয়েছিলেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের বরাত দিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ-সংক্রান্ত খবর প্রকাশিতও হয়েছে। তবে সেসব খবর কেবল গুঞ্জনই রয়ে গেছে। অন্তত ৫০ জন মডেল-নায়িকার তালিকায় নাম রয়েছে বলে জানা গেছে। তালিকায় থাকা অনেকে সুর পাল্টিয়ে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এরপর আবার সব থমকে যায়। সবশেষে সম্রাট ও আরমানের গ্রেফতার হওয়ার ঘটনা ঢাকাই ছবির সঙ্গে তাদের দীর্ঘদিনের সংশ্লিষ্টতা ও বিতর্কের বিষয়টিকে সামনে নিয়ে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

sixteen + fourteen =