Templates by BIGtheme NET
৫ ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং , ২২ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিবিধ » যে জ্যোতিষ এর ভবিষ্যৎবাণীতে তাজ্জব বনে যান সুলতান মাহমুদ

যে জ্যোতিষ এর ভবিষ্যৎবাণীতে তাজ্জব বনে যান সুলতান মাহমুদ

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৭, ২০১৯, ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ

গজনির সুলতান মাহমুদের দরবারে অনেকটা বাধ্য হয়েই থাকতে হয়েছিলো আল বিরুনীকে। বলতে গেলে সুলতান মাহমুদ জোর করেই আল বিরুণীকে তার প্রাসাদে রেখেছিলেন। মাহমুদ ছিলেন তিরিক্ষি মেজাজের মানুষ। কিন্তু আল বিরুনীর অসাধারণ জ্যেতিষ জ্ঞানের কথা তিনি জানতেন।

একদিন সুলতান মাহমুদ তার বাগানে বসে ছিলেন। সেখানে আল বিরুনীকে ডেকে বললেন, সেই বাড়ির চারটি দরজার মধ্যে কোন দরজা দিয়ে কাল আমি বের হবো, তা একটি কাগজে লিখে রেখে যান। তারপর আল বিরুনী তা একটি কাগজে লিখে সুলতান মাহমুদের কম্বলের নিচে রেখে দিলেন।
এদিকে, সুলতান মাহমুদ আল বিরুনীর ভবিষ্যত বাণীকে ভুল প্রমাণের জন্য একজন রাজমিস্ত্রীকে দিয়ে সেই রাতেই নতুন করে একটি দরজা বানান। পরদিন বের হওয়ার সময় কম্বলের নিচের কাগজের লেখা দেখে তাজ্জব বনে যান সুলতান মাহমুদ।
কাগজে লেখা ছিলো –
“আপনি পূর্ব দিকের দেয়াল কেটে একটি নতুন দরজা বানিয়ে সেটি দিয়ে বের হবেন”

বিশ্বের অন্যতম পরাক্রমশালী বীর সুলতান মাহমুদ পণ্ডিতের এই অবাক করা পাণ্ডিত্যকে সাদরে গ্রহণ করতে পারেননি। তার চেয়ে বেশি মহান হবে কেউ, একথা তিনি কল্পনাই করতে পারেন না। সাথে সাথে তিনি আল বিরুনীকে ছাদ থেকে ফেলে দেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু আল বিরুনীর কোন ক্ষতি হয়নি। কারণ মশামাছি প্রতিরোধের জালে আটকে ধীরে ধীরে নিচে পড়েন তিনি। এতে সুলতান মাহমুদ আরও রেগে গেলেন। পণ্ডিতকে তার ব্যক্তিগত ডায়েরি নিয়ে আসতে বলা হলো। সেই ডায়েরিতে মূলত ছিলো দৈনিক ভাগ্য গণনা সংক্রান্ত কথা। সেখানকার একটি লেখা দেখেও তাজ্জব বনে যান সুলতান মাহমুদ।

ডায়রিতে লেখা ছিলো-
“আমি আজকে উঁচু জায়গা থেকে নিচে পড়ে যাবো। কিন্তু বিশেষ আঘাত পাবো না”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

four × four =