Templates by BIGtheme NET
১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » ফেসবুকে প্রেম, ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার

ফেসবুকে প্রেম, ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৫, ২০১৯, ৭:০৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি : ফেসবুকে তাদের পরিচয়। এর সূত্র ধরেই প্রেমিকের সঙ্গে খুলনা শহরে ঘুরতে যায় এক কিশোরী। সেখানে সেই প্রেমিকসহ একদল যুবক তাকে ধর্ষণ করে। গত বুধবারের এই ঘটনা মাকে জানায় ওই কিশোরী। পরে তিনি বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রূপসা থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর আজ শনিবার সকাল পর্যন্ত খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটে অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় ওই তরুণীর কথিত প্রেমিক নিয়ামুলকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

খুলনা জেলার পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ সংবাদমাধ্যমকে এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন, রূপসার শ্রীফলতলার শরিফুল ইসলাম (২০), আসাদুল মোড়ল(২১), মোসাব্বরপুর গ্রামের কামরুল হাওলাদার (১৮), মহিষাঘুনি গ্রামের নাঈম শেখ (১৯), বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জের রিয়াজুল ইসলাম (১৯) ও সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার সোহেল রানা (২২)।

খুলনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নূর আলম সিদ্দিকী জানান, ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে নানার বাড়িতে থেকে এক মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে। তার মা খুলনা শহরে থাকেন। মেয়েটি ফেসবুকে বাগেরহাটের মোড়েলঞ্জের নিয়ামুল নামে এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে।

মেয়েটি তার মায়ের কাছে বেড়াতে এসে গত বুধবার নিয়ামুলের সঙ্গে খুলনা শহরের হাদিস পার্কে ঘুরতে যায়। সে সময় মেয়েটির সঙ্গে তার আট বছরের এক খালাত ভাইও ছিল। নিয়ামুল সুকৌশলে তার বন্ধু রিয়াজুল ইসলাম ও সোহেল রানাসহ ওই কিশোরীকে রূপসা উপজেলার মোছাব্বরপুরে এক নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। এর পর সেখানে নিয়ে ওই রাতেই নিয়ামুল কিশোরীকে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনার পর মোছাব্বরপুর গ্রামের কয়েকজন যুবক বিষয়টি জানতে পারলে নিয়ামুলের কাছে ‘মোটা অংকের টাকা’ দাবি করে। নিয়ামুল ও তার বন্ধুরা টাকা দিতে না পারায় ওই গ্রামের শরিফুল ইসলাম ও আসাদুল মোড়ল ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় সহায়তা করেন নাইম শেখ (১৯) ও কামরুল হাওলাদার (১৮)।

এ ঘটনার পর মেয়েটি বাসায় ফিরে তার মাকে জানানোর পর তিনি বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রূপসা থানায় মামলা দায়ের করেন বলে পুলিশ কর্মকর্তা নূর আলম সিদ্দিকী জানিয়েছেন।

ধর্ষণের শিকার ওই মাদ্রাসাছাত্রী বর্তমানে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

2 + seven =