Templates by BIGtheme NET
১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » গবেষণা প্রতিবেদন
যার সবকিছু মনে থাকে তার বুদ্ধি কম

গবেষণা প্রতিবেদন
যার সবকিছু মনে থাকে তার বুদ্ধি কম

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯, ৪:১৫ অপরাহ্ণ

শার্লক হোমস একবার ড.ওয়াটসনকে বলেছিলেন, তিনি অপ্রয়োজনীয় কোন তথ্য তার মাথায় রাখেন না। এমনকি সুর্যের চারপাশে পৃথিবী ঘুরছে, পৃথিবীকে ঘিরে চাঁদ ঘুরছে এইসব তথ্যও তিনি জানেন না বা জানতে চান না। উনবিংশ শতকের কোন ব্যক্তি এইসব তথ্য জানেন না শুনে ড.ওয়াটসন যথেষ্ট অবাক হয়েছিলেন। বিস্ময়ভরা দৃষ্টিতে তাকিয়ে ছিলেন শার্লকের দিকে। কিন্তু তাতে তার সুনাম ক্ষুন্ন হয়নি। গোয়েন্দা চরিত্র হিসেবে শার্লক হোমসকে একনামে চেনে পৃথিবী।

বিজ্ঞানীরা বলেন, মানুষের মস্তিষ্ক একটা স্টোররুমের মতো। এখানে অপ্রয়োজনীয় তথ্য বেশি রাখলে প্রয়োজনীয় তথ্যও হারিয়ে যেতে পারে। এই কথাটি অনুধাবন করেছিলেন আর্থার কোনান ডোয়েল। তাই তিনি শার্লককে তথ্যের জঞ্জালমুক্ত মানুষ হিসেবে দেখাতে চেয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী হরউইজ, গবেষণা করে দেখিয়েছেন, একদিকে অধিক তথ্যসমৃদ্ধ মানুষ যেমন গবেষণামূলক কাজ করতে পারে না। অন্যদিকে কোন ব্যক্তি গবেষণামূলক কাজে আত্মনিয়োগ করলে তার তথ্য ভান্ডার কমতে থাকে। এমনকি গবেষণায় ডুবে থাকা ব্যক্তিরা আত্মীয় স্বজন ও সামাজিকতার বিষয়গুলোও ভুলে যেতে পারেন। এই কারণেই বড় বিজ্ঞানীদের বোকার মতো কাজ কারবার নিয়ে অনেক গল্প প্রচলিত আছে।

হরউইজ মনে করেন, একজন চিন্তাশীল মানুষের কাছে সমাজ অনেক কিছু আশা করে। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ নিজেকে অধিক তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলতে চায়। তার মতে, অধিক তথ্য একটা কম্পিউটারেও রাখা সম্ভভ। কিন্তু এই তথ্য মাথায় রাখলে মানুষের সৃষ্টিশীলতা নষ্ট হতে পারে।

তিনি তার গবেষণা গ্রন্থে আরো লিখেছেন, পৃথিবীতে যত শিক্ষিত লোক আছেন, যোগ্যতা থাকা সত্যেও তার ২ শতাংশ লোকও বিজ্ঞানী হয়ে ওঠেন নি বা নতুন কিছু আবিস্কার করেননি ।

তবে সংখ্যাটি বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হলেও রাজনীতিবিদদের বেলায় ব্যতিক্রম দেখা গেছে। তার গবেষণা মতে, পৃথিবীতে যুগান্তকারী রাজনীতিবিদরা তথ্যসমৃদ্ধ ব্যক্তি ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

nine + 19 =