Templates by BIGtheme NET
১ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৬ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » দেশে অবাক করা উদ্ভাবন; শিশু বিছানায় প্রস্রাব করলে জানান দেবে অ্যালার্ম

দেশে অবাক করা উদ্ভাবন; শিশু বিছানায় প্রস্রাব করলে জানান দেবে অ্যালার্ম

প্রকাশের সময়: সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯, ৬:৩৮ অপরাহ্ণ

শিশুরা বিছানায় প্রস্রাব করে ৩-৪ ঘণ্টা ওই প্রস্রাবের মধ্যেই থাকে। ছোট শিশুরা কথা বলতে না পারায়  ভেজা বিছানায় থেকে ঠাণ্ডাজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হয়। প্রস্রাব করে অনেক সময় কান্নাও করে না। তাই তাদের জন্য অভিনব বিছানা তৈরি করা হয়েছে যা শিশু প্রস্রাব করার সঙ্গে সঙ্গে অ্যালার্ম বেজে উঠবে। তখন তাৎক্ষণিক মা বা পরিবারের অন্য কেউ এসে শিশুর বিছানাটি বদলে দিতে পারবেন।

শূন্য থেকে ছয় মাস বয়সী কোনো শিশু বিছানায় প্রস্রাব করলে তা জানান দেবে অ্যালার্ম। অবাক করার মতোই বিষয়টি। এমন একটি বিছানা (বেড) উদ্ভাবন করেছেন বগুড়ার মাহমুদুন নবী বিপ্লব। পেশায় একজন যন্ত্র প্রকৌশলী। বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সাবেক এ শিক্ষার্থী এর আগে ইন্টেলিজেন্ট ডিসি ভেন্টিলেশন সিস্টেম এবং বন্যা সতর্কীকরণ যন্ত্র উদ্ভাবন করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন। প্রায় দুই বছর গবেষণা করে ‘বেবি ইউরিন অ্যালার্ম বেড’টি নামের এ বেডটি তৈরি করেন তিনি।

এই বেড তৈরিতে চায়নার এক ধরনের সেলুলয়েডের সুতা ও ওয়াটার প্রুফ কাপড় ব্যবহৃত হয়েছে। ১টি বেড তৈরিতে খরচ পড়েছে সাড়ে ১৩ শ টাকা। বিক্রি হচ্ছে ১৫ শ টাকায়। সাধারণ রাবার ক্লথ এর মতো দেখতে হলেও এই বেডে রয়েছে সেলুলয়েডের সুতা দিয়ে তৈরি নকশা করা সার্কিট। যেটা শরীরের কোনো ক্ষতি করবে না একই সঙ্গে প্রস্রাবকে ও পানিকে চিনতে পারবে।

এই বিছানায় রয়েছে একটি কন্ট্রোল সার্কিট ও একটি অয়্যারলেস কলিং বেল। বিছানায় বাচ্চা প্রস্রাব করলে সিস্টেমটি একটি সিগনাল থ্রো করবে কলিং বেলে। সঙ্গে সঙ্গে কলিং বেলটি সিগনালের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে যে বাচ্চা প্রস্রাব করেছে।

একই সাথে বিপ্লব স্যালাইন অ্যালার্মও আবিষ্কার করেছেন। রোগীর স্যালাইন শেষ হওয়ার পর রক্ত স্যালাইনের মধ্যে উঠে যায়। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ দেবে স্যালাইন অ্যালার্ম। এটি একটি ডিজিটাল সিস্টেম যা রোগীকে স্যালাইন দেওয়ার পর যখন স্যালাইন শেষ হবে তার পূর্ব মুহূর্তে সেন্সরের মাধ্যমে ডিউটিরত নার্সকে অবহিত করবে রোগীর স্যালাইন শেষ হয়েছে। এই ডিভাইজের দাম প্রতিটি ৬ থেকে ১০ হাজার টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

14 − five =