Templates by BIGtheme NET
২ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৭ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিশেষ সংবাদ » যে কারণে আটকে আছে উপজেলা নির্বাচনে আ.লীগের বিদ্রোহীদের শাস্তি

যে কারণে আটকে আছে উপজেলা নির্বাচনে আ.লীগের বিদ্রোহীদের শাস্তি

প্রকাশের সময়: আগস্ট ২২, ২০১৯, ৯:১০ অপরাহ্ণ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের যেসব নেতা দলীয় নির্দেশ অমান্য করে নির্বাচন করেছিলেন, তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখনও তাদের শাস্তি দেওয়া হয়নি। সত্যতা যাচাইসহ কয়েকটি কারণে আটকে আছে উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহীদের শাস্তি। এমন তথ্য জানিয়েছে আওয়ামী লীগের একটি সূত্র।

দলীয় সূত্র বলছে, মূলত তিনটি কারণে বিদ্রোহী প্রার্থীদের শাস্তি দেওয়া যায়নি। এই তিন কারণ হলো—১. ঢালাওভাবে যে অভিযোগ এসেছে, সময় নিয়ে সেগুলোর সত্যতা যাচাই-বাছাই করা। ২. শোকের মাস আগস্টের কারণে সাংগঠনিক তৎপরতা না থাকা এবং ৩. দলের দুঃসময়ে অবদান আছে, কিন্তু ভুল তথ্যের কারণে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছেন, এমন বিদ্রোহীদের ক্ষেত্রে দলের শিথিল মনোভাব।

তবে সরকারি দলের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, সেপ্টেম্বরের শুরুতেই অভিযুক্ত বিদ্রোহীরা বহিষ্কারের চিঠি হাতে পেতে শুরু করবেন। বিদ্রোহীদের যারা সমর্থন করেছেন তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির যে সিদ্ধান্ত হয়েছিল, তা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। যারা দলের দায়িত্বশীল পদে থেকে বিদ্রোহীদের সমর্থন করেছেন, তাদের অনেককে দলীয় পদ থেকে কৌশলে সরিয়ে দেওয়া হবে।

যেমন, থানা বা জেলার সম্মেলনের সময়, অভিযুক্ত থানা বা জেলার সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদককে বাদ দিয়ে সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়কের পদটি অন্য কাউকে দিয়ে কাজ চালানো হবে। সেক্ষেত্রে অভিযুক্ত ব্যক্তি স্বাভাবিক নিয়মেই সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড থেকে বাদ পড়বেন। আর যেসব মন্ত্রী ও এমপি বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থন দিয়েছেন, ভবিষ্যতে তাদের মনোনয়ন না দেওয়া, কিংবা মন্ত্রী না করার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে, এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে ধীরে ধীরে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, শোকের মাসের কারণে উপজেলায় বিদ্রোহী প্রার্থীদের শাস্তির সিদ্ধান্ত এখনও আটকে আছে। তবে, সাংগঠনিক সম্পাদকরা কাজ করছেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতাকারীদের বিরুদ্ধে তৃণমূল থেকে কয়েক হাজার অভিযোগ জমা পড়ে। অভিযোগে অনেক মন্ত্রী, এমপি ও প্রভাবশালী নেতার নাম এসেছে। এগুলোর বিভাগ ওয়ারি সংক্ষিপ্ত তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এসব তালিকা ধরে তদন্ত চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three × 5 =