Templates by BIGtheme NET
২ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ১৭ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
Home » আন্তর্জাতিক » গ্রিনল্যান্ড কিনতে না পেরে সফর বাতিল করলেন ক্ষুদ্ধ ট্রাম্প, ডেনমার্কের সমালোচনা

গ্রিনল্যান্ড কিনতে না পেরে সফর বাতিল করলেন ক্ষুদ্ধ ট্রাম্প, ডেনমার্কের সমালোচনা

প্রকাশের সময়: আগস্ট ২১, ২০১৯, ৯:১৩ অপরাহ্ণ

ইউরোপের দেশ ডেনমার্কের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল গ্রিনল্যান্ড কেনার শখ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। বেশ কয়েকবার গণমাধ্যমের কাছে সরাসরি এ কথা জানানও তিনি। ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী মেট ফ্রেডেরিকসেন ট্রাম্পের এ প্রস্তাবটিকে ‘একটি উদ্ভট খায়েশ’ ও  ‘হাস্যকর’ বলে উড়িয়ে দেন। তাতেই ক্ষুদ্ধ হন ট্রাম্প। এবার সে দুঃখেই আগামী মাসের ডেনমার্ক সফর বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

২১ আগস্ট হোয়াইট হাউসের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, আগামী ২ সেপ্টেম্বর ড্যানিশ রানি দ্বিতীয় মারগ্রেথের আমন্ত্রণে দেশটি সফরের কথা ছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের। যদিও ২০ আগস্ট রাতেই তিনি এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘ডেনমার্ক সফরে যাওয়ার আর কোনো ইচ্ছা আমার নেই।

গত ১৮ আগস্ট এক সংবাদ সম্মেলনে গ্রিনল্যান্ড ডেনমার্কের জন্য একটি ‘অর্থনৈতিক বোঝা’ উল্লেখ করে মার্কিন ধনকুবের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছিলেন, আবাসন খাতের জন্য অঞ্চলটি একটি বিশাল ব্যাপার। যা নিয়ে অনেক কিছুই করা সম্ভব।

আর সেই উদ্দেশ্যে ট্রাম্প তাঁর অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এবং আইনি উপদেষ্টাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনাও শুরু করেছেন। ওই খবরে দাবি, জনবিরল কিন্তু বিভিন্ন খনিজ পদার্থে সমৃদ্ধ দ্বীপটি কেনার ব্যাপারে ঘনিষ্ঠজনদের অনেকেই ট্রাম্পকে উৎসাহ দিয়েছেন। ট্রাম্প বলেন, ‘রিয়েল এস্টেট কেনার দিক থেকে বিবেচনা করলে এটি একটি লাভজনক চুক্তি হবে।

সম্প্রতি ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানায়, খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পরেই ডেনমার্কে সমালোচনার ঝড় উঠে। দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী তথা প্রভাবশালী রাজনীতিক, লার্স রাসমুসেন টুইট করে বলেন, ‘পুরো বিষয়টা এপ্রিল ফুল বলে মনে হচ্ছে।

গ্রিনল্যান্ডের কুলুসুক অঞ্চলের বাসিন্দা ও স্থানীয় নেতা বেন্ট অ্যাবিলসেন ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ১৮৬৭ সালেও আমাদের কিনে নিতে চেয়েছিল। এমনকি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ও তাদের সেই চেষ্টা অব্যাহত ছিল; যা এখনো আছে। এর আগে ১৯৪৬ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হ্যারি ট্রুম্যান আবাসন বাণিজ্যের জন্য অঞ্চলটি ক্রয়ের আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ড্যানিশ পিপলস পার্টির পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র ও এমপি সরেন এসপারসন বলেন, ট্রাম্প যদি সত্যিই এ নিয়ে চিন্তা ভাবনা করেন, তাহলে তিনি যে উন্মাদ হয়ে গেছেন, এটা তার চূড়ান্ত প্রমাণ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

sixteen − 1 =