Templates by BIGtheme NET
১১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৬ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ২৩ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
Home » মতামত » চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ : তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা কেমন আছেন?

চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ : তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা কেমন আছেন?

প্রকাশের সময়: জুলাই ২৮, ২০১৯, ৩:৩৪ অপরাহ্ণ

শহিদুল ইসলাম মনু: বাংলাদেশ ছাত্র লীগ, চট্টগ্রাম মহানগর নিয়েই কিছু বলার চেষ্ঠা করছি। তেমন গুছিয়ে সুন্দর ভাষার প্রয়োগে লিখার দক্ষতা আমার নাই। খুবই সাদামাটা ভাবে বলার চেষ্ঠা করবো । কারো ভাল লাগতে পারে কারো আবার না, এটাই স্বাভাবিক। বেশী ভূমিকা না দিয়ে সোজাস্যাপ্টা ভাবে বলেই ফেলি—
চট্টগ্রাম এর ছাত্রলীগ এখন কলেজ নির্ভর। ওয়ার্ডে কি হচ্ছে, কমিটি আছে কিনা, যদি থাকে তবে কতদিনের পুরানো- তা দেখার কেউ নাই। ৪১টি ওয়ার্ডের মধ্যে মনে হচ্ছে ৪টি ওয়ার্ড ছাড়া কোন ওয়ার্ডেই কমিটি নাই। যদিও থেকে থাকে তাহলে ঐ কমিটির মেয়াদ অনেক আগেই চলে গিয়েছে। ওয়ার্ডে কাজ করার আগ্রহ নেতাদের এখন আর নাই কারন কলেজে রেডিমেট পাওয়া যায়। আমি কলেজকে কোন ভাবে খাটো করছি না। কলেজ ভিত্তিক অবশ্যই কমিটি থাকবে সেখান থেকে নেতৃত্ব উঠে আসবে সেটাই স্বাভাবিক কিন্তু নগরের নেতৃবৃন্দ যখন কলেজ ভিত্তিক হয়ে যাবে সেটাতো ঠিক নয়।

তৃণমূল পর্যায়ে কর্মী তৈরী করতে, কর্মীদের নেতৃত্বের বিকাশ করার জন্য ওয়ার্ডের বিকল্প নাই। ওয়ার্ড ভিত্তিক যদি কর্মী তৈরী করা না হয়, তৃণমূল পর্যায়ে যদি নেতৃত্ব তৈরী করা না হয় তবে চট্টগ্রাম নগরে ছাত্রলীগকে ভবিষ্যতে চরম মূল্য দিতে হবে। বর্তমানে ছাত্রলীগের কার্যক্রম এর যে ধারা তা সঠিক নয় বলে আমি মনে করি। তৃণমূলকে বাদ দিয়ে কলেজকে ঘিরেই এখন ছাত্রলীগের সমস্থ কার্যক্রম। এটা কখন হতে পারেনা। বটবৃক্ষ যত বড়ই হোকনা কেন শেঁকড় যদি শক্তিশালী না হয় এক সময় মুখথুবরে পড়বে।

চট্টগ্রাম ছাত্রলীগে কোথা থেকে যেন হঠাৎ করেই “বড় ভাই” সংস্কৃতি চলে এসেছে। বড় ভাইয়ের আশে পাশে তার অনুসারীরা ঘুরঘুর করে, বড় ভাইয়ের নামে শ্লোগান দিতে দিতে মুখে ফেনা বের করে ফেলছে। এই সব অনুসারীদের যদি কোন বিষয়ে বক্তব্য রাখতে বলা হয় এক মিনিটও বক্তব্য দেয়ার সামর্থ নাই। অনেক ক্ষেত্রে দলের ইতিহাস ও বলতে পারেনা। না পারার পেছনে সেই বড় ভাইদের আমি দায়ী করবো, কারন আপনারা অনুসারীদের নিকট থেকে বাহবা নিতে পারেন কিন্তু তাদের দল সম্পর্কে শিক্ষা দিতে পারেননি।

৮০-৯০ দশকে প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিটি ছিল আবার ওয়ার্ডের অধীনে ইউনিট কমিটি ছিল। ইউনিট কমিটিতে যারা ভাল কাজ করেছে তাদের ওয়ার্ড কমিটিতে সুযোগ দেয় হতো এর ধারাবহিকতায় ওয়ার্ড থেকে মহানগর-এ কাজ করার সুযোগ পেত। ওয়ার্ড পর্যায়ে এক সময় বিভিন্ন সভা সমাবেশ হতো, মহানগরের নেতৃবৃন্দ সভায় উপস্থিত হতো যার মধ্য দিয়ে তৃণমূলের সাথে নগরের নেতৃবৃন্দের একটা আন্তরিক সম্পর্ক তৈরী হতো যা বর্তমানে পুরোটাই অনুপুস্থিত। কলেজ কমিটিতে যারা কাজ করছে বা কলেজের শিক্ষার্থীরা সকলেই ওয়ার্ড-এ বসবাস করছে। ওয়ার্ডের নেতারাই জানে তাদের এলাকায় কে কোন রাজনীতির ধারায় বিশ্বাসী। ওয়ার্ড থেকে যে ভাবে নেতৃবৃন্দ মুখফিরিয়ে নিয়েছেন এর ফল কি হবে তা এখনও আপনারা বুজছেন না। ওয়ার্ড পর্যায়ে যখন নেতা ও কর্মী তৈরী হবেনা তখন এর প্রভাব কলেজেও পড়বে। তখন আপনার থাকবেন না কিন্তু আগামী প্রজন্মের জন্য ছাত্রলীগের একটি অন্ধকার ভবিষ্যত তৈরী করে দিচ্ছেন।

আজকে এমন একটা অবস্থার সৃস্টি হয়েছে যেখানে নতুন নেতা কর্মি তৈরী হচ্ছেনা। একজন তৃণমূল পর্যায়ের কর্মী নেতার নির্দেশে মিছিলে যাচ্ছে, পোস্টার লাগাচ্ছে, দলের বিভিন্ন কাজ করছে যার মাধ্যমে সে দলকে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতা অর্জন করছে। কর্মীটির চোখে স্বপ্ন ছিল, উৎসাহ ছিল, উদ্দীপনা ছিল কিন্তু বিধিবাম কোন কমিটিতেই তার কাজ করার সুযোগ নাই, থাকবে কিভাবে কিমিটিগুলোতো বছরের পর বছর সম্মেলন হচ্ছে না। আশায় বুক বেধে কাজ করতে করতে এক সময় তার শিক্ষা জীবন শেষ হয়ে যায়। মেধা, বুদ্ধি, জ্ঞান, প্রজ্ঞা, দক্ষতা থাকা সত্বেও ছাত্র নেতৃত্ব দেয়ার সুযোগ সে হারায়।

আর যুবলীগের কথা কি বলবো, ওয়ার্ড কমিটির বয়স যেখানে ২০-২২ বৎসর, অনেক ওয়ার্ড কমিটির নেতারা এখন আওয়ামী লীগ এর থানা কমিটির নেতা, দুটি পদবীধারী। মহানগরের একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছিল তারাও ওয়ার্ড কমিটি গঠনে ব্যর্থ । তরুনরা কোথায় যাবে ?

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ এর মাননীয় সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক আপনাদের বলছি— দয়া করে অভিভাবক হিসাবে পদক্ষেপ নিন, আপনারাই ভরসা। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের তৃণমূল অবস্থান ভাল নয়।

আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি। আমার প্রিয় ছাত্রলীগ আমি তোমায় ভালবাসি। জয় বাংলা

এই লেখাটি একান্তই আমার নিজস্ব ভাবনা,আমার দেখা ও অভিজ্ঞতা থেকে।
শহিদুল ইসলাম মনু
সদস্য – বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন , চট্টগ্রাম মহানগর
সাবেক সভাপতি – ছাত্রলীগ , ১৫নং ওয়ার্ড
সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক – নগর ছাত্রলীগ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

fourteen + five =