Templates by BIGtheme NET
৬ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২১ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ১৯ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
Home » বিবিধ » যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাইবার অপরাধীরা একাউন্ট হ্যাক করে!

যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাইবার অপরাধীরা একাউন্ট হ্যাক করে!

প্রকাশের সময়: জুলাই ১৮, ২০১৯, ৮:১৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

২০১৭ সালে দুই বিলিয়ন সংরক্ষিত তথ্য সাইবার অপরাধীরা কুক্ষিগত করেছিল। আর ২০১৮ সালের প্রথমার্ধে ৪.৫ বিলিয়নেরও বেশি সোশ্যাল অ্যাকাউন্ট হ্যাক করেছে তারা। বলা চলে প্রযুক্তির এই যুগে ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা লঙ্ঘনে সাইবার অপরাধীরা ব্যবহার করছে নিত্য নতুন প্রযুক্তি। যার ফলাফলও পাচ্ছে তারা।

এখন পর্যন্ত যেসব প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাইবার অপরাধীরা বিভিন্ন একাউন্ট হ্যাক করেছে তার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো, অ্যাডভান্সড ফিশিং কিটস। এই কিটের সাহায্যে প্রতি সেকেন্ড চারটি নতুন ম্যালওয়্যার নমুনা তৈরি করা যায়। ‘ফিশিং’কে দ্রুত গতিতে ছড়ানোর বিবেচনায় সর্বাধিক সফল আক্রমণকারী হিসেবে ধরা হয় এই কিটসকে। বেশিরভাগ ফিশিং সাইট মাত্র চার থেকে পাঁচ ঘণ্টার জন্য অনলাইনে সক্রিয় থাকে। ব্যবহারকারীদের মাত্র ১৭% শতাংশ ফিশিং আক্রমণের কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করে। বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর কাছে ‘ফিশিং’ একটি নামমাত্র ঝুঁকির নাম। ফলস্বরূপ আজকে কেবল ৬৫ শতাংশ ইউআরএল কে বিশ্বস্ত বলে মনে করা হয়।

প্রযুক্তির উন্নয়নে ‘রিমোট এক্সেস অ্যাটাকে’র আশঙ্কা প্রতি মুহূর্তে বেড়েই চলেছে। ২০১৮ সালে রিমোট অ্যাক্সেস অ্যাটাকের প্রধান ধরন ছিল ক্রিপ্টোজ্যাকিং, যা ক্রিপ্টোকারেন্সি মালিকদের টার্গেটে পরিণত করে। রিমোট অ্যাক্সেসের শিকার হচ্ছে স্মার্ট হোম এপ্লায়েন্সগুলো। হ্যাকারদের প্রাথমিক আক্রমণ চলে কম্পিউটার, স্মার্টফোন, ইন্টারনেট প্রোটোকল (আইপি) ক্যামেরা এবং নেটওয়ার্ক সংযুক্ত স্টোরেজ (NAS) ডিভাইসগুলো লক্ষ্য করে। কারণ এই সরঞ্জামগুলোর সাধারণ পোর্ট খোলা থাকে এবং ডেটা ইনপুটে বাহ্যিক নেটওয়ার্কের প্রয়োজন পড়ে।

স্মার্টফোনগুলোতে সবচেয়ে সাধারণ আক্রমণের শিকার হয়ে পড়ে কারণ ব্রাউজিং ব্যবহারে সতর্ক (ফিশিং, স্পিয়ার ফিশিং, ম্যালওয়্যার) না থাকা বা নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন না থাকা। আরএসএর মতে ৬০ শতাংশ প্রতারণার ঘটনা ঘটে মোবাইল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে এবং ৮০ শতাংশ মোবাইল হ্যাকে ব্রাউজারের পরিবর্তে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা হয়।

এ ব্যাপারে ক্রাফের সভাপতি জেনিফার আলম বলেন, বেশিরভাগ লোক তাদের আর্থিক কার্যাদি পরিচালনার জন্য স্মার্ট মোবাইল ব্যবহার করে বা তাদের হোম নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সংবেদনশীল তথ্য আদান প্রদান করে, যা ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য বিশেষ হুমকি স্বরূপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

sixteen + 7 =