Templates by BIGtheme NET
২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১২ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
Home » বিশেষ সংবাদ » মৃত্যুর পর এরশাদের সমালোচনা করা না করা নিয়ে বিতর্ক

মৃত্যুর পর এরশাদের সমালোচনা করা না করা নিয়ে বিতর্ক

প্রকাশের সময়: জুলাই ১৬, ২০১৯, ১:১৩ অপরাহ্ণ

গত ১৪ জুলাই পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন বাংলাদেশের রাজনীতিতে আলোচিত ব্যক্তি এরশাদ। রাজনীতির শুরু থেকেই তিনি স্বৈরশাসক বা স্বৈরাচার এরশাদ নামে পরিচিত ছিলেন। এছাড়া বাংলাদেশের স্যাটায়ার সাহিত্যকরা তাকে বিশ্ববেহায়া নামেও সম্বোধন করতেন। ক্ষমতায় থাকাকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক পদক্ষেপ ও বক্তব্য নিয়েও তিনি ব্যপক আলোচিত – সমালোচিত হয়েছিলেন। রাষ্ট্রব্যবস্থায় তিনি এমন কিছু পরিবর্তন এনেছিলেন যা এ দেশের আদর্শের অবস্থানকে স্থায়ীভাবে পরিবর্তন করে দিয়েছিলো। এতে দেশের একটি বৃহৎ জনগোষ্ঠেী যেমন ক্ষিপ্ত হয়েছিলো তেমনি আরেকটি জনগোষ্টী খুশিও হয়েছিলো। এছাড়া তার শাসনামলে অবকাঠামোগত উন্নয়নের দীর্ঘ তালিকা যেমন রয়েছে, তেমনি দুঃশাসন দুর্নীতিরও দীর্ঘ তালিকা রয়েছে। তাই এরশাদকে নিয়ে আলোচনা করতে গেলে উপরের সবগুলো প্রসঙ্গ চলে আসাই স্বাভাবিক।

কিন্তু তার মৃত্যুর পর এই আলোচনা সমালোচনা নিয়ে শুরু হয়েছে পাল্টা সমালোচনা। সোস্যাল মিডিয়ার লোকজন দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যুক্তি পাল্টা যুক্তির ঝাপি নিয়ে বসেছেন। বিভিন্ন সামাজিক যোগোযোগ মাধ্যমে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন এরশাদের মৃত্যুর পর তার অপকর্ম নিয়ে আলোচনা করা কতটুকু যুক্তিসঙ্গত? ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি তুলে তারা বলছেন, মৃত্যুর পর কারো সমালোচনা করা ইসলামী আদর্শের পরিপন্থি। যেহেতু মৃত্যুর পর একজন ব্যক্তির পক্ষে কোন জবাব দেয়া সম্ভব নয় সেহেতু তার সমালোচনাও করা উচিৎ নয়।

তবে এর বিরোধী মন্তব্যও এসেছে ব্যপক। তারা বলছেন, এরশাদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগগুলা অনেক পুরনো। যার জবাব দেয়ার জন্য তিনি বহু বছর জিবিত ছিলেন। এছাড়া অনেক অপরাধ আদালতের দ্বারা প্রমানিত হয়েছে। অতএব তিনি জবাব দিতে পারবেন না বলে যে ধুয়া তোলা হচ্ছে তা এরশাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়।

একজন সিনিয়র সাংবাদিক লিখেছেন, এরশাদের ক্ষমতায় থাকা দিনগুলোর জ্বলন্ত স্বাক্ষি আমি । এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে আমি ছিলাম সক্রিয় কর্মী। ইতিহাসের প্রয়োজনে এরশাদের সেই ইতিহাস তুলে ধরাও আমার কর্তব্য। এই আলোচনায় ভালো-খারাপ সবকিছুই তুলে আনা উচিৎ। যেন নতুন প্রজন্মের কাছে এটা শিক্ষর্নীয় হয়। কিন্তু এরশাদের খারাপ কাজটি গোপন করলে তা হবে ইতিহাসের বিকৃতি। তাই সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার স্বার্থেই এরশাদের নিরপেক্ষ সমালোচনা হওয়া উচিৎ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eleven + 1 =