Templates by BIGtheme NET
৫ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২০ জুলাই, ২০১৯ ইং , ১৬ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী
Home » বিজ্ঞান- প্রযুক্তি » নেটদুনিয়ার অবৈধ স্বর্গ রাজ্য ডার্কনেট! (পর্ব-২ ভিডিওসহ)

নেটদুনিয়ার অবৈধ স্বর্গ রাজ্য ডার্কনেট! (পর্ব-২ ভিডিওসহ)

প্রকাশের সময়: জুলাই ৭, ২০১৯, ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

মোহাম্মাদ এনামুল হক এনা: নেটদুনিয়ার অবৈধ স্বর্গ রাজ্য ডার্কনেট! শিরোনামে প্রথম পর্বে আলোচনা করা হয়েছিল ডার্ক ওয়েব বা ডার্কনেট সম্পর্কে। সেখানে ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে খুব সাধারণ কিছু আলোচনা করা হয়েছিল। তবে ইন্টারনেটের এই জগত টি কিন্তু আরও অনেক বিশাল, গোপনীয় এবং রহস্যময় ।

প্রথম পর্বেই বলা হয়েছে ডার্ক নেট হচ্ছে অবৈধ, অন্যায় , নিষিদ্ধ কাজের এক গোপন জগত। কিন্তু, ডার্ক নেটের সবচেয়ে রহস্যময় স্তর সম্পর্কে আপনি নিশ্চয়ই জানেন না। প্রথম পর্বে জানলেন ডার্ক নেট কি? এবং এর মাধ্যমে যেসকল অবৈধ কাজ কর্ম সংঘটিত হয়ে থাকে তার সম্পর্কে। আজ নেটদুনিয়ার অবৈধ স্বর্গ রাজ্য ডার্কনেট! (পর্ব-২)তে থাকছে রহস্যময় স্তর সম্পর্কে। চলুন সময় ক্ষেপন না করে রহস্যময় স্তরগুলো জেনেনেই।

প্রথমেই বলি ডার্ক নেটে অনেকগুলো ধাপ রয়েছে। অর্থাৎ, এটি অনেকটা পিয়াজের মত। আপনি যদি একটি পিয়াজ কাটতে যান তবে দেখবেন পিয়াজটিতে অনেক গুলো লেয়ার বা স্তর রয়েছে যা একটির পর একটি সাজানো। ডার্ক ওয়েবেও রয়েছে অনেকগুলো লেয়ার। উপরের লেয়ার গুলোতে কিছুটা প্রবেশ করা সম্ভব। কিন্তু লেয়ার যত নিচের দিকে আসতে থাকে ততই তার ভিতরে প্রবেশ করা হয়ে উঠে কঠিন। আর, ডার্ক ওয়েবের সবচেয়ে গভীরতম লেয়ার টিকেই বলা হয় ‘মারিয়ানাস ওয়েব’।

কি আছে মারিয়ানাস ওয়েবে?
মারিয়ানাস ওয়েবে আছে বিভিন্ন দেশের সরকারের টপ সিক্রেট ইনফরমেশন। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে সরকার এই গোপন জায়গায় কি করে? এখানে সরকারের উঁচু লেভেল এর গোয়েন্দা, মিলিটারি তথ্য থাকে যা খুবই গোপনীয়। দেশের স্বার্থে এগুলো গোপন রাখা খুবই প্রয়োজন। আর মনে রাখবেন বিভিন্ন দেশের সরকারও কিন্তু এমন কিছু মানবতা বিরোধী কাজ করে যা তারা চায় না পৃথিবী তা জানুক। যেমন অস্ত্র বিক্রয়, অবৈধ চুক্তি, অন্য দেশের উপর নজরদার রাখা, দেশে দেশে সংঘাত সৃষ্টি এছাড়াও এমন অনেক ষড়যন্ত্র মূলক কাজ যা জানলে মানবতার কথা বলা দেশগুলো সম্পর্কে আপনার ধারনাই বদলে যাবে। এমন অনেক গোপনীয় দলিল, চুক্তির তথ্য রয়েছে এই মারিয়ানাস ওয়েবে। এছাড়া বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠন গুলোর মধ্যে বা বিভিন্ন দেশের সাথে জঙ্গি সংগঠন গুলোর যোগাযোগ হয় এখানে।

ইলিউমিনিদের কাজকর্ম ও যোগাযোগের জায়গা
আপনি কি পৃথিবীর সবচেয়ে সিক্রেট সোসাইটি সম্পর্কে জানেন? এই সোসাইটির নাম হচ্ছে Illuminati. যারা গোপনে নিয়ন্ত্রণ করছে পুরো পৃথিবী। বিশেষ করে ব্যাংক এবং মিডিয়া। তাদের উদ্দেশ্যই হচ্ছে সমগ্র পৃথিবীকে নিজেদের আয়ত্তে নিয়ে আসা। পরবর্তী পর্বে ইলিউমিনিদের সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। এরা এতটাই গোপন যে এদের সদস্যরা কখনই নিজেদের প্রকাশ্যে পরিচয় দেয় না। এরা ব্যবহার করে অনেক উঁচু লেভেল এর প্রযুক্তি। এই সোসাইটির সদস্য রা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করে এই মারিয়ানাস ওয়েবে।

মানুষের উপর গোপন গবেষণা এবং তার ডাটাবেস
বলা হয়ে থাকে পৃথিবীর লোকচক্ষুর আড়ালে জীবিত মানুষের উপর অমানবিক গবেষণাগুলো করা এখানে। এসকল গোপন গবেষণার তথ্যগুলো ডাটাবেস আকারে মজুদ করা আছে মারিয়ানা ওয়েব এ।

আটলান্টিস দ্বীপের গোপন তথ্য
মানব ইতিহাসের এক রহস্যের নাম হচ্ছে আটলান্টিস দ্বীপ। বলা হয় খুব প্রাচীনকালে এক উন্নত শহর ছিল আটলান্টিস। সবচেয়ে গোপন বিষয় হচ্ছে তারা প্রযুক্তিগত দিকে এমন কিছু আবিষ্কার করেছিল যা বর্তমান আবিষ্কারকেও হার মানায় । খুব গোপনে এই দ্বীপে গবেষণা চালান হচ্ছে, যার তথ্য মজুদ করা আছে মারিয়ানাস ওয়েবে।

মারিয়ানা ওয়েব কি হ্যাক করা সম্ভব?
সাধারণ মোবাইল, কম্পিউটার বা ল্যাপটপ দিয়ে এটি হ্যাক করা সম্ভব নয়। এই সাইটগুলো হ্যাক করতে একজন হ্যাকারের প্রয়োজন হবে কোয়ান্টাম কম্পিউটার। কোয়ান্টাম কম্পিউটার হচ্ছে এক ধরনের সুপার কম্পিউটার। বলা হয়ে থাকে এই কম্পিউটার গুলো এতই শক্তিশালী যে এরকম চারটা কম্পিউটার দিয়ে আমেরিকাকে লিড করা যাবে। তাহলে বুঝতেই পারছেন সাধারণ মানুষ দূরে থাক অনেক দেশের পক্ষেও অসম্ভব এই গোপন জায়গায় প্রবেশ করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seven + one =