Templates by BIGtheme NET
৫ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৯ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » খেলাধূলা » ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ » অজিদের বিধ্বস্ত করে বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় কোহলিদের

অজিদের বিধ্বস্ত করে বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় কোহলিদের

প্রকাশের সময়: জুন ১০, ২০১৯, ৯:০১ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক :

বিশ্বকাপের ইতিহাসে নিজেদের চতুর্থ সর্বোচ্চ রানের ইনিংস গড়েও মূহূর্তের জন্য দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া৷ তবে শেষমেশ সংশয়ের যাবতীয় কাঁটা উপড়ে ফেলে দুরন্ত জয় তুলে নেয় ভারত৷ কেনিংটন ওভালে অস্ট্রেলিয়াকে ৩৬ রানে পরাজিত করে চলতি বিশ্বকাপে উপর্যুপরি দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় কোহলি অ্যান্ড কোং৷

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫২ রান তোলে ভারত৷ অর্থাৎ ওভালে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সামনে ৩৫৩ রানের বিশাল লক্ষ্যমাত্রা রাখে তারা৷ শুধু ওভালেই নয়, জিততে হলে বিশ্বকাপের ইতিহাসেও রেকর্ড রান তাড়া করতে হত অস্ট্রেলিয়াকে৷ শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই চালালেও অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয়ে যায় ৩১৬ রানে৷

ধাওয়ানের রাজকীয় শতরান, অধিনায়ক কোহলি ও তাঁর ডেপুটি রোহিতের জোড়া অর্ধশতরান, পান্ডিয়া-ধোনির সুপার ক্যামিও ইনিংস, সব মিলিয়ে কেনিংটন ওভালে রানের পাহাড়ে টিম ইন্ডিয়া। টস জিতে বিরাটের প্রথমে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত যে কোনওভাবেই ভুল ছিল না তা প্রমাণ করেন ধাওয়ান-রোহিতের ওপেনিং জুটিই। ৫৩ বলে অর্ধশতরান পূর্ণ করা ধাওয়ান ওভালে ৯৫ বলে তিন অঙ্কের গন্ডি ছুঁয়ে ফেলেন৷ ৭০ বলে ৫৭ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন হিটম্যান৷

অধিনায়কের সঙ্গে জুটি বেঁধে চলতি বিশ্বকাপে দেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে শতরান পূর্ণ করেন ধাওয়ান। ১৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০৯ বলে ১১৭ রানের রাজকীয় ইনিংস খেলে ক্রিজ ছাড়েন শিখর৷ ব্যাটিং অর্ডারের চার নম্বরে উঠে এসে ২৭ বলে ৪৮ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া। তৃতীয় উইকেটের জুটিতে কোহলির সঙ্গে ৮১ রান যোগ করে আউট হন তিনি।

১৪ বলে ২৭ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে দলকে ৩৫০ রানের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেন ধোনি। অন্যদিকে ৭৭ বলে ৮২ রানের অধিনায়কোচিত ইনিংসে সমর্থদের আশ্বস্ত করেন বিরাট। ৪টি চার ও ২টি ছয়ে সাজানো ছিল ভারত অধিনায়কের ইনিংস। ১১ রানে অপরাজিত থাকেন লোকেশ রাহুল। ব্যাট হাতে মাঠে নামলেও কোনও বল খেলার সুযোগ হয়নি কেদার যাদবের৷

১টি উইকেট নিলেও ১০ ওভারে ৭৪ রান খরচ করলেন অস্ট্রেলিয়ার এক নম্বর বোলার মিচেল স্টার্ক। ২টি উইকেট সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে সফল বোলার মার্কাস স্টোইনিস। যদিও মাত্র ৭ ওভারে ৬২ রান খরচ করলেন তিনি৷ এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন ন্যাথন কুল্টার-নাইল ও প্যাট কামিন্স৷

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ভাগ্যের সাহায্য পেয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া৷ ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই বুমরাহ বোল্ড করেন ডেভিড ওয়ার্নারকে৷ তবে বেল না পড়ায় সে যাত্রায় বেঁচে যান অজি ওপেনার৷ শূন্যরানে আউট হতে বসা ডেভিড শেষমেশ ৮৪ বলে ৫৬ রান করে চাহালের বলে আউট হন৷ তার আগে অ্যারন ফিঞ্চকে দুরন্ত ক্ষিপ্রতায় রানআউট করেন কেদার যাদব৷আউট হওয়ার আগে অদি অধিনায়ক ৩৫ বলে ৩৬ রানের যোগদান রাখেন৷

স্টিভ স্মিথ ও উসমান খোওয়াজা তৃতীয় উইকেটে জুটিতে ৬৯ রান যোগ করেন৷ খোওয়াজা ৩৯ বলে ৪২ রান করে বুমরাহর বলে বোল্ড হওয়ার পর ম্যাক্সওয়েল ক্রিজে এসে ঝড় তোলন৷ স্মিথ ও ম্যাক্সওয়েল যখন ব্যাট করছিলেন, ম্যাচে ভারতের অধিপত্য কিছুটা হলেও ক্ষুন্ন হয়েছিল৷ তবে স্মিথ (৬৯) ও স্টোইনিসকে (০) একই ওভারে ফেরত পাঠিয়ে ভুবনেশ্বর কুমার ম্যাচের রাশ দলের হাতে এনে দেন৷

পরে চাহাল আউট করেন ম্যাক্সওয়েলকে৷ ১৪ বলে ২৮ রান করে ক্রিজ ছাড়েন এদি অলরাউন্ডার৷ অ্যালেক্স ক্যারি ৩৫ রানে অপরাজিত ৫৫ রানের আগ্রাসী ইনিংস খেললেও শেষরক্ষা করতে পারেননি৷ বুমরাহ আউট করেন কুল্টার-নাইল (৪) ও কামিন্সকে (৮)৷ স্টার্ক রানআউট হন ৩ রান করে৷ ইনিংসের শেষ বলে ভুবনেশ্বর তুলে নেন জাম্পার উইকেট৷

বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর ৩টি করে উইকেট দখল করেন৷ চাহাল তুলে নেন ২টি উইকেট৷ উইকেট পাননি হার্দিক ও কুলদীপ৷ ম্যাচের সেরা হন ধাওয়ান৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

four × five =