Templates by BIGtheme NET
২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরী
Home » জাতীয় » সংবাদ সম্মেলনে যা নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী

সংবাদ সম্মেলনে যা নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশের সময়: জুন ৯, ২০১৯, ৯:৪৩ অপরাহ্ণ

সম্প্রতি জাপান, সৌদি আরব ও ফিনল্যান্ড এই তিনটি দেশ সফর করেছন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বরাবরের মতো সফর শেষে রোববার (৯ জুন) গণভবনে সংবাদ সম্মেলন করেন প্রধানমন্ত্রী। সম্মেলনে সফরের নানান দিক ও সাম্প্রতিক জাতীয় নানান ইস্যু নিয়ে কথা বলেন তিনি।

তিস্তা চুক্তি :
লিখিত বক্তব্য শেষ সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন প্রধানমন্ত্রী। ভারতে নরেন্দ্র মোদির বিজয় ও তিস্তা ইস্যু নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা সমুদ্রসীমা নির্ধারণে ও ছিটমহল বিনিময়ের মতো কঠিন কাজ সম্পন্ন করেছি। সরকার শত বছরের বদ্বীপ পরিকল্পনা (ডেল্টা প্ল্যান ) নিয়েছে এবং এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে পানির জন্য কারো মুখাপেক্ষী হতে হবে না। সেজন্য তিস্তা নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করতে বারণ করেন তিনি।

রোহিঙ্গা :
রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের কারণে সৃষ্ট সংকটের বিষয়টি ইসলামী দেশগুলোর (ওআইসি) সম্মেলনে তুলে ধরেছি। এ নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গের কথা হয়েছে। আগামী জুলাইয়ে চীনে যেতে পারি। আশা করি তখন রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আলোচনা হবে। সবাই চায় রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফেরত যাক। কিন্তু মিয়ানমারের সাড়াটা পাই না।

তিনি আরো বলেন, প্রত্যাবাসনের জন্য যখন তালিকা করলাম তখন রোহিঙ্গারা আন্দোলন করলো। এর পেছনে কারা কেন উসকানি দেয়? অনেক সংস্থা চায় না তারা ফিরে যাক। কারণ গেলে তাদের চাকরি থাকবে না। ফান্ড আসবে না।’
ভারত-চীন-জাপান মেনে নিয়েছে যে এরা মিয়ানমারের নাগরিক। তাদের ফিরে যাওয়া উচিত। তারা এটাও বলেন, সবাই যদি এদের (মিয়ানমার) বিরুদ্ধে লাগি, তবে এদের মানাবে কে?

জাপান সফর :
জাপান সফরের বিষয়টি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাপান সফরে কিছু চুক্তি সই করেছি। কয়েকটি প্রকল্পে ২৫০ কোটি ডলারের উন্নয়ন সহায়তা চুক্তি সই হয়েছে। ঢাকার হলি আর্টিজানে নিহত জাপানিদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করে তাদের সমবেদনা জানানোর বিষয়টিও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

মাতৃভূমির প্রতি টানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাপান সফর শেষে সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে প্লেনে করে যাওয়ার সময় পাইলট যখন জানালেন, আমরা চট্টগ্রামের ওপর দিয়ে যাচ্ছি, তখন মনে হলো, নিজের দেশে নেমেই যাই।
জাপানের সঙ্গে মাতারবাড়ি, সাবরাং প্রকল্পের কথা স্মরণ করে দেন তিনি। বলেন, সাবরাংয়ে টুরিস্ট প্লেস করবে সরকার। এটা পুরোপুরি বিদেশিদের জন্য করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

বিমান :
সম্প্রতি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একজন ক্যাপ্টেন পাসপোর্ট ছাড়া কাতারে গিয়ে আটকা পড়েন। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘হয়তো পাসপোর্ট ভুলে যেতে পারে। তবে এখানে ইমিগ্রেশনের নজর থাকতে হবে। আমি বলেছি ব্যবস্থা নিতে।

তিনি আরো বলেন, আমি এখন ইমিগ্রেশনে কড়াকড়ি করতে বলেছি। আমাদের সবাই তো ভিআইপি! যত ভিআইপি ই থাকুক, কাউকে ছাড়া হবে না।

তিনি এসময় বলেন, কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার উদ্যোগ নিয়েছি। এটাকে আন্তর্জাতিক রুটের সঙ্গে সংযুক্ত করার কাজ চলছে। এখানে জ্বালানি নেবে আন্তর্জাতিক রুটের

তারেক রহমান :
লন্ডনে থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এই নাম নিতেও ঘৃণা লাগে। তবে, ‘আজ হোক কাল হোক এক দিন না একদিন তাঁর শাস্তি কার্যকর হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ওই একুশে আগস্টের হামলায় আইভি রহমানসহ ২৮ জন মানুষ নিহত হন। শতাধিক মানুষ আহত হন। শুধু একুশে আগস্ট নয়, ১০ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালানের সঙ্গেও যুক্ত সে । এসব ব্যক্তির জন্য অনেকের মায়াকান্না দেখছি। আমরা যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি। তবে ওরা অনেক টাকার মালিক। সব সময় চেষ্টা করে ঝামেলা সৃষ্টি করার। আমি সেখানে গেলেও ঝামেলা সৃষ্টি করতে চায়। তবে যাই হোক, তাঁর শাস্তি কার্যকর হবে।

ফিনল্যান্ড :
ফিনল্যান্ড সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৪ জুন দেশটির প্রেসিডেন্ট সওলি নিনিসতোর সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে তারা খুব দক্ষ। তাদের একটি দল আসবে। তাদের বিনিয়োগে আমরা আহ্বান জানাই। এসব খাতে সম্ভাবনা করতে তারা বাংলাদেশে আসবে।

নিক্কেই সম্মেলনে কি নোট স্পিকার হিসেবে বক্তৃতার বিষয়টি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেখানে বক্তৃতায় এশিয়ার দরিদ্র ও গরিব দেশগুলোকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার বিষয়ে গুরুত্বরোপ করি।

ডেইলি স্টার :
ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম সম্প্রতি জার্মানি গিয়ে দেশে নিজের মতো করে কলাম লিখতে পারছেন না বলে যে অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন তার জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, চাপ থাকলে ওই সম্পাদক জার্মানিতে গিয়েও ওই কথা বলার সাহস পেতেন না’

উল্লেখ্য, গত ২৮ মে প্রধানমন্ত্রী তিন দেশ সফরে টোকিওর উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন। সেখানে চার দিনের সফরে শেখ হাসিনা ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের মধ্যে বৈঠক শেষে দুই দেশ আড়াই শ কোটি মার্কিন ডলারের ৪০তম ওডিএ চুক্তি স্বাক্ষর করে। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী ‘ফিউচার ফর এশিয়া’ বিষয়ক নিক্কেই সম্মেলনে যোগ দেন। ওই সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি জাপানের ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গেও গোলটেবিল বৈঠক করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten − 1 =