Templates by BIGtheme NET
১০ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৪ জুন, ২০১৯ ইং , ২০ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী
Home » জাতীয় » ‘জুলিও কুরি’ পদক পাওয়ার সাথে সাথেই বাঙালি জাতিকে উৎসর্গ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু

‘জুলিও কুরি’ পদক পাওয়ার সাথে সাথেই বাঙালি জাতিকে উৎসর্গ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু

প্রকাশের সময়: মে ২৩, ২০১৯, ৯:০৯ অপরাহ্ণ

শোষিত ও নিপীড়িত জনগণের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে তথা বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বিশ্বশান্তি পরিষদ সর্বোচ্চ সম্মান ‘জুলিও কুরি’ পুরস্কারে ভূষিত করেছিলেন বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ১৯৭২ সালের ২৩ মে ফিনল্যান্ডের হেলসিংকিতে বিশ্বশান্তি পরিষদ এক ইশতেহারে তাকে এ পুরস্কারে ভূষিত করে।

পরের বছর অর্থাৎ ১৯৭৩ সালের ২৩ মে বিশ্বশান্তি পরিষদের উদ্যোগে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় এশীয় শান্তি সম্মেলন। সেদিন বিশ্ব শান্তি পরিষদ কর্তৃক বাঙালি জাতির জনক, আফ্রো-এশিয়া-ল্যাটিন আমেরিকার মুক্তিকামি মানুষের মহান নেতা এবং গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও শান্তি আন্দোলনের পুরোধা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রদান করা হয়।

এ দিন বঙ্গবন্ধুকে পদক পরিয়ে দেন বিশ্বশান্তি পরিষদের সেক্রেটারি-জেনারেল রমেশ চন্দ্র।

এ সম্মান পাওয়ার পর পরই বঙ্গবন্ধু নিজেই বলেছিলেন, এ সম্মান কোনো ব্যক্তি বিশেষের জন্য নয়। এ সম্মান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মদানকারী শহীদদের, স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর সেনানীদের। জুলিও কুরি শান্তি পদক সমগ্র বাঙালি জাতির।

বঙ্গবন্ধুকে কাছ থেকে দেখা কয়েকজন বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বের মুক্তিকামী, নিপীড়িত, মেহনতি মানুষের অবিসংবাদিত নেতা। শান্তি, সাম্য, স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি আজীবন সংগ্রাম করেছেন। জেল, জুলুম, অত্যাচার, নির্যাতন সহ্য করেছেন। বিশ্বশান্তি পরিষদের শান্তি পদক কমিটি জাতির পিতার কর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ। এটি ছিল বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় তার অবদানের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। বাংলাদেশের জন্য প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মান। তার এ প্রাপ্তি সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশকে জাতিসংঘ সহ অনান্য. বিশ্বসংস্থা, রাষ্ট্রের কাছ থেকে সদস্যপদ ও স্বীকৃতি লাভ তরান্বিত হয়েছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

19 + 7 =